এপ্রিল ১৬, ২০২১

ঔষধ ও কাচামালের দোকান ছাড়া সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ অভিযান করেন চেম্বার অব কমার্স ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা

প্রতিক্ষণের সংবাদ পেতে সাথে থাকুন এবং শেয়ার করে অন্য কে পড়ার সুযোগ করে দিন। 

এম রেজা টুনু সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
করোনা ভাইরাসের প্রকৌপ বৃদ্ধি পাওয়ায় সুনামগঞ্জের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে শহরের অলিগলিতে গিয়ে ব্যবসায়ীদের দোকানপাঠ বন্ধ করে দেন চেম্বার অব কমার্স ও জেলা ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা।
রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের সভাপতি খায়রুল হুদা চপল,সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত ও জেলা ব্যবসায়ী সমিতির সহ সভাপতি সুশান্ত রায় ও সাধারন সম্পাদক জাহিদ হাসানের নেতৃত্বে শহরের প্রতিটি অলিগলিতে গিয়ে জরুরী ঔষধপত্র ও কাচামালের দোকান ছাড়া বিভিন্ন শপিং মহলসহ বিভিন্ন দোকানপাঠ বন্ধ করে দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চেম্বারের পরিচালক ও সুনামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র নুরুল ইসলাম বজলু,পরিচালক সবুজ কান্তি দাস,সীতেশ তালুকদার মঞ্জু,ব্যবসায়ী সমিতির কোষাধ্যক্ষ চন্দন রায়,সদর মডেল থানার ওসি(তদন্ত) সনজুর মুর্শেদ আহমদ,এস আই অঞ্চন দাস চেম্বারের পরিচালক মোঃ নুরে আলম প্রমুখ।
এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ওসি(তদন্ত) সনজুর মুর্শেদ আহমদ সকল ব্যবসায়ীদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেছেন,সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স ও জেলা ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্ত মেনে সবাই করোনা ভাইরাসের প্রার্দূভাব থেকে দূরে থাকার আহবান জানান। নিজে নিরাপদে থাকলে আপনার পরিবারের প্রতিটি সদস্য নিরাপদে থাকবে। কাজেই সবাইকে নীতিমালা মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে বলেন কেই আইন অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে দ্রæত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।
সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত বলেছেন,এই করোনা ভাইরাসের কারণে এই দোকানপাঠগুলো বন্ধ রাখার নির্দেশনা ব্যবসায়ীরা মানছেন কিনা তা সরেজমিনে দেখতে শহরের অলিগলিতে ঘুরে দেখলাম। দোকানপাঠ খোলা থাকলে যেমন সামাজিক দূরত্ব কেউ মানবে না ফলে এর প্রকৌপ মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এজন্য আগামী ১৬ মের মধ্যে যদি এই মহামারী করোনা বিস্তার লাভ করে তাহলে সমস্ত দোকানপাঠ বন্ধ রাখা হবে। কেননা আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমার মাঠে নেমেঠি নিজে নিরাপদে থাকলে তার পরিবার নিরাপদে থাকবে। এটা কোন বন্যা না বৃষ্টিপাত না কাজেই ক্রেতা বিক্রেতারা যদি আমরা যাওয়ার পরে ব্যবসায়ীরা আবারো দোকানপাঠ খোলে দেন তাহলে এটা হবে দুঃখজনক হবে। তিনি আরো বলেন প্রধানমস্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যবসায়ীদের জন্য প্রণোদনার ব্যবস্থা করেছেন। এজন্য চেম্বার অব কমার্স ও ব্যবসায়ী সমিতির আহবানে শহরের সকল ব্যবসায়ীরা সাড়া দিয়ে সবাই দোকানপাঠ বন্ধ রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি খায়রুল হুদা চপল বলেছেন, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাস ও ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা এই বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসকে মোকাবেলা করার জন্য সুনামগঞ্জের মানুষকে সংক্রমন থেকে রক্ষা করার জন্য ঈদের আগ পর্যন্ত দোকানপাঠ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যদি এই পরিস্থিতি অনুকূলে আসে তখন ব্যবসায়ীদের নিয়ে চেম্বারের নেতৃবৃন্দরা বসে আগামঅ ১৬ মে সকল দোকানপাঠ খুলে দেয়া হবে। ফলে সকল স্তরের ব্যবসায়ীরা আমাদের সাথ ঐক্যমত পোষন করেছেন। তিনি বলেন,প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই করোনার প্রকৌপ দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ায় সকল কর্মহীন ও মধ্যবিত্তদের জন্য প্রতিদিন দুবেলা খাবারের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। পাশাপাশি দেশের ব্যবসায়ূদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট শেস ফজলে ফাহিম সরকারের নিকট ব্যবসায়ীদের সহজ শর্তে ঋণ দেয়া ও প্রনোদনার আহবান জানানোর সাথে সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যবসায়ীদের প্রনোদনার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন । তিনি সবাইকে কোন জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাহির যেন কেহ না হন সেই আহবান জানান। ##

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.