সোম. সেপ্টে ২১, ২০২০

আওয়ামী লীগ নেতার কারণে যুবতী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, থানায় মামলা।

নতুন আলো অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট:  কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সিরাজুদ্দৌল্লাহর কারণে এক যুবতী ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার বড়াইডাঙ্গী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত সিরাজুদ্দৌল্লাহ ওই গ্রামের মৃত এফাজউদ্দিন আলীর ছেলে।

গতকাল সোমবার (১ মে) সকাল ১০ টার দিকে সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী ও মেয়েটির ভাই জানান, সাড়ে ৫ মাস আগে সিরাজুদ্দৌল্লাহ ওই যুবতীকে বাড়িতে ঘর পরিষ্কার করে দেওয়ার জন্য ডেকে আনে। বাড়িতে কোন লোক না থাকায় এ সুযোগে সিরাজুদ্দৌল্লাহ জোরপূর্বক মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির শারীরিক পরিবর্তন দেখে পরিবারের লোকজন ২৯ মে রাজিবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান সে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনা চলছে।

মেয়েটির ফুফু শাহানা বলেন, ‘আমার এতিম ভাতিজিকে ৫ মাসের গর্ভবতী করছে সিরাজুদ্দৌল্লাহ। আমরা কার কাছে বিচার দিমু, আমাগো বিচার কেডা করবো। গ্রামের বড় বড় মানুষরা আওয়ামী লীগের নেতার পক্ষ নিয়া মীমাংসা হওয়ার জন্য চাপ দিতেছে। মীমাংসা না হলে আমাগো গ্রামে থাকবার দিবোনা, কত মাস্তান পাটি আমাগো হুমকি দিতাছে।

অভিযুক্ত সিরাজুদ্দৌল্লাহর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন রাজিবপুর সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলাম। মেয়েটি মাঝে মধ্যে আমার বাড়িতে কাজ করে। এ জন্য আমাকে জড়ানো হয়েছে। মেয়েটির সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই।’

রাজিবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. গোলাম মোর্শদ তালুকদার বলেন, ‘এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি, মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

সুত্র ইত্তেফাক

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.