সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

ঈশ্বরদীতে সেভেন আপের বোতলে রাখা কীটনাশক পান করে আপন দুই বোনের মৃত্যু

১ min read

নতুন আলো অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট: পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় সেভেনআপের বোতলে রাখা কীটনাশক ভুল করে পান করে রাহিমা খাতুন (৮) ও খাদিজা খাতুন (৪) নামে আপন দুই বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে মারা যায় রাহিমা এবং বুধবার (৩ জুন) রাতে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরেক বোন খাদিজার মৃত্যু হয়।

দুই সহোদর বোন ঈশ্বরদী পৌর এলাকার ৬নং ওয়ার্ডের অরণকোলা গ্রামের অটোরিক্সা চালক বাবু মন্ডলের মেয়ে।

নিহত দুই বোনের ছোট চাচা মানিক মন্ডল জানান, মায়ের সাথে মঙ্গলবার (২ জুন) তিন বোন খাদিজা, রাহিমা ও ঋতু খাতুন দাশুড়িয়ার আথাইলশিমুল গ্রামে তাদের নানা আব্দুল্লাহ’র বাড়িতে বেড়াতে যায়। তাদের মামা রোকন উদ্দিন ক্ষেতের আগাছা পুড়িয়ে মারার জন্য ওইদিন তার ঘরের টেবিলে একটি সেভেনআপ-এর বোতলে কীটনাশক রেখে বাইরে যান। এ সময় সেভেন আপের বোতল ভেবে ওই কীটনাশক গ্লাসে ঢেলে পান করে তিন বোনসহ আরো কয়েকজন শিশু। বড়রা সামান্য পান করে উটকো গন্ধের কারণে বমি করে দিলেও ছোট্ট খাদিজা ওই কীটনাশকের বিষক্রিয়ায় নিস্তেজ হয়ে পড়ে।

তিনি আরও জানান, খাদিজাকে দ্রুত স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নেয়া হয়। সেখান থেকে খাদিজাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই গতকাল রাতে তার মৃত্যু হয়। বৃহস্পতিবার (৪ জুন)সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে মারা যায় মেজ বোন রাহিমা খাতুন।

ঈশ্বরদী পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল হাসেম বাংলানিউজকে বলেন, আপন দুই বোনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

পাবনার ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী বাংলানিউজকে জানান, কেউ থানা পুলিশকে অবগত করেনি অভিযোগও জমা দেয়নি। অভিযোগ পেলেই ঈশ্বরদী থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা হবে।

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.