এপ্রিল ১৬, ২০২১

আকষ্মিক পানি বৃদ্ধিতে ভাঙন আতঙ্কে ধরলার পাড়ের প্রায় দেড় শতাধিক পরিবার।

১ min read

অনলাইন ডেস্ক রিপোর্ট:কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ধরলা নদীতে আকষ্মিক পানি বৃদ্ধিতে ভাঙন আতঙ্কে ধরলার পাড়ের প্রায় দেড় শতাধিক পরিবার।

উদ্বিগ্ন উপজেলার শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের সোনাইকাজী, ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের প্রাণকৃষ্ণ ও বড়ভিটা ইউনিয়নের চর-ধনীরাম গ্রামের ধরলার পাড়ের মানুষগুলো। ভাঙনের তীব্রতা বাড়তে থাকলে যে কোনো সময় ওই সব পরিবারের ঘর-বাড়ি ধরলায় বিলীন হয়ে যেতে পারে বলে স্থানীয়দের ধারণা। তারা স্থায়ী বাধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন।

শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের সোনাইকাজী গ্রামের অধিবাসী বেলাল হোসেন, তার স্ত্রী ফরিদা বেগম, তছর উদ্দিন, সোমলেম উদ্দিনসহ অনেকেই জানান, তারা প্রত্যেকেই গত চার পাঁচ বছরে অনন্ত সাত থেকে আট বার ধরলার ভাঙনের কবলে পড়েছেন। এই ভাঙনকে মোকাবেলা করে কোনো রকমে টিকে আছে। এর পর আমাদের আর যাওয়ার জায়গা নেই।

 

একই কথা জানালেন বড়ভিটা ইউনিয়নের ধনীরাম গ্রামের মিজানুর রহমান ও তার স্ত্রী অনোয়ারা বেগম, দুলাল মিয়া, রশিদুল ইসলাম ও ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের প্রানকৃষ্ণ গ্রামের সৈয়ত আলী ,তাজুল ইসলাম এবং আব্দুল বারী ও সামাদ আলী। সকলেরই দাবি স্থায়ী বাধ নির্মাণ করা হোক।

ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুন অর-রশিদ ও বড়ভিটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খয়বর আলী জানান, উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ধরলার সাথে সংশ্লিষ্ট। ধরলা নদীতে স্বপ্নের শেখ হাসিনা সেতু বাস্তবায়ন হলেও আমরা ধরলা নদীর দুই তীরবর্তী মানুষ হুমকির মুখে। তারা প্রতি বছরেই ধরলার ভাঙনের শিকার হচ্ছেন। এ বছরও আশঙ্কা করা যাচ্ছে। স্থায়ী বাধ নির্মাণই এই সমস্যার সমাধান দিতে পারে।

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, গত কয়েকদিনের বৃষ্টিপাত ও ভারত থেকে পানি আসায় ধরলার নদীতে আকষ্মিক পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.