বুধ. সেপ্টে ২৩, ২০২০

সিলেটের ওসমানীনগরে অটোরিকশা এ মামুন পরিবহনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৬, আহত ১।  

১ min read

সৈয়দ মুহিবুর রহমান মিছলু সিলেট থেকে::সিলেট ঢাকা মহাসড়কের ওসমানী নগরের গজিয়া নামক স্থানে গ্রিনবার্ড কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের সামনে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।

হাইওয়ে পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১৩ আগষ্ট) ঢাকা থেকে আসা সিলেটগামী মামুন পরিবহনের একটি বাস ও শেরপুরগামী একটি সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে অটোরিকশাটি দূমড়ে মুছড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলে অটোরিকশার চালক জুনেদ আহমদ (৩০) নিহত হন।

 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের ওসমানীনগর গজিয়া গ্রিনবার্ড কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের সামনে ঢাকা থেকে আসা সিলেটগামী মামুন পরিবহনের একটি বাস ঢাকা মেট্রা-ব ১৪-৯৮৪৮ ও শেরপুরগামী সিএনজি অটোরিকশা মৌলভীবাজার-থ ১১-৩৬৯১ এর সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটলে ঘটনাস্থলে অটোরিকশাটি দূমড়ে মুছড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলে চালক জুনেদ আহমদ (৩০) নিহত হন।

নিহত জুনেদ আহমদ ওসমানীনগর উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের মোবারকপুর গ্রামের মৃত আলাউদ্দিন মিয়ার পুত্র। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস, থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌছে একজন মৃত ও আহত মহিলা, শিশুসহ ৭ জনকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

তবে আহতদের মধ্যে উপজেলার গোয়ালাবাজার ইউনিয়নের ব্রাম্মনগ্রামের জাহাঙ্গির (২২) একই গ্রামের বড় বাড়ির ফজলু মিয়ার স্ত্রী হামিদা বেগম (৩৫), মেয়ে আরিফা বেগম (১২), তার শ্যালিকার মেয়ে কারিমা বেগম (৩) কে হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের কে মৃত ঘোষনা করেন।

এ ঘটনায় ব্রাম্মন গ্রামের কমরু মিয়ার পরিবারের মহিলাসহ আরও তিনজন গুরুত্ব আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধিন থাকলেও রাত ১১ ঘটিকার দিকে তাদের মধ্য থেকে আরো দুই জনের মৃত্যু হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এপর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ৬ জন।

দূর্ঘটনার পর মহাসড়কের দুই পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে প্রায় দুই ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরবর্তীতে হাইওয়ে পুলিশ ও থানা পুলিশের দীর্ঘ প্রচেষ্ঠায় মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোঃ এরশাদুল হক ভূইয়া বলেন, ঘটনাস্থল থেকে সিএনজি অটোরিকশা চালকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় ৭ জন কে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতদের মধ্যে আরও চারজনকে মৃত ঘোষনা করেছেন বলে জানা গেছে। মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক করতে আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে গতকাল দক্ষিণ সুরমার নাজির বাজারেও গতকাল এনা বাসের চাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহীর একজন মারা গেছেন এবং ওপর জন চিকিৎসাধীন আছেন।

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.