সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

নারী তুমি শতরূপা – আফতাব মল্লিক

 

বলো নারী,
ভালোবাসা দিয়ে স্নেহ পরশে যে কাছে টেনে নেবে
আমি তারই।।
আমি কন্যা আমি সঙ্গী আমি মা ।
সহ ধর্মিনী আমি মহীয়সী।
রাত জেগে ভোরে হেসে হেসে উঠি
আমি তপ্ত কিরণে দীপ্ত প্রখর রবি।।
আমি জোৎস্না রাতে মেঘ চুমে যাওয়া শান্ত শীতল শশী ।।
নিজ রূপে আমি জ্বলে জ্বলে মরি, পুড়ে ছারখার আমি বহ্নি ।
মোর কটি হিল্লোলে বিশ্ব যৌবন দোলে,
ট্যারা চোখে মোর পাগল কতশত,
যৌবনাবেগে ভরপুর আমি তন্বী।
জন্মের বাতি জ্বালায়েছি আমি ,
শত অধমেরে মেনে নিয়েছি যে স্বামী,
জাত কূল তরে যুগে যুগে আমি হয়েছি বালিকা বধূ।
তুমি বর মালা পরে থাকো শির উঁচু করে।
জয়গান তব লোক মুখে আর আমি লাঞ্ছিতা শুধু।
তোমার চাহিদা মেটাতে হয়েছি আমি সমাজের কীট।
মোর রস শুষে ধন্যে বিরাজে মুখোশ ধারী কালপ্রিট।
আমি কালবৈশাখী, আমি হ্যারিকেন।
আমি সাহারার বুকে ছুটে চলা পাগলীনি মরুঝড়।
আমি সাগর পাহাড় মানি না
বাধা পেয়ে থেমে যাওয়া জানি না।
মোর ভীষণ রোষে উষ্ণ উষর বালিয়াড়ি কাঁপে থরথর।
যুগে যুগে আমি রূপে রূপে সাজি
দুখ চেপে বুকে সব সুখ ত্যাজি।
সব রূপেতে চমকিত মোর বুকেতে মায়ের চিহ্ন।
সন্তান কোলে ঢুলুঢুলু ঘুমে
আদরে যতনে ভালোবেসে চুমে,
গড়ে তুলি শুধু মানব সমাজ, ছেলে মেয়ে দেখিনা ভিন্ন।
আমি বালিকা আমি কন্যা।
নব বরষের অঝোর ধারায়
কে আছে মোর পথ রোকে হায়!
আপন খেয়ালে নেচে নেচে চলি দুকূল ছাপানো বন্যা।
আমি কিশোরী আমি প্রেমিকা,,,,,
তুমি মন ভাঙো তুমি ব্যথা দাও।
তোমার ছলনা বুঝতে না পারি
ব্যথার স্মৃতি ভুলতে না পারি,
সমাজে তোমার বদনাম ঢাকি হয়ে চুপ প্রেম সেবিকা।
আমি নিশা আমি ঊষা, আমি ভোরের ভৈরবী সুর,,,,,।
আমি তপ্ত তপন গ্রীষ্ম দহন
তরুছায়া তলে আপন খেয়ালে রাখাল প্রেমে প্রেমাতুর।
আমি মহারানী,
যবে আসি রন সাজে,,,,,।
পিছে পিছে মোর জয়ডঙ্কা বাজে।
বজ্র মুষ্টিতে ঝলকানি আঁকে খাপ খোলা তরবারি।
অন্যায় বধি ন্যায় তীরে বিঁধে
সদা বুকে মোর সত্যের ক্ষিদে,
ভাঙবো আজিকে পাষাণ প্রাচীর রূদ্র মুর্তি ধরি।
সকলেরে দিই মোর বুকে ঠাঁই
তবু আমাকে জন্মিতে নাই,
মোর আগমনে নয় কেহ খুশি কপালে অভাগী লেখা।
অবহেলা আর দুখে দুখে বাঁচি
অপমান তরে বৃথা প্রেম যাচি,
দ্বারে দ্বারে শুধু ঘুরে ঘুরে মরি সুখের নাইকো দেখা।
তবু মোর হিয়া চায় হতে প্রিয়া মন হায় প্রেম মাগে !!
প্রেম পেয়ালায় ছলকে ছলকে
কাঁকনের সুরে ঝনকে ঝনকে
তব বাহুডোরে এ জীবন ভরে বধূ হতে সাধ জাগে।
আমি এক তপ্ত বারুদের স্তুপ,,,,,।
শত ব্যথা বুকে নিয়ে
জমা ক্ষোভ সাথে নিয়ে,
মুখ বুজে থাকি আমি নিশ্চুপ।
যেদিন জাগিয়া উঠিব রোষে,,,,,,,,,,,,,।
আকাশ বাতাস করিয়া মুখর
ঝন্ ঝন্ ঝন্ শত খঞ্জর,
স্বর্থলোভী পুরুষ সমাজ ভৎসিবে নিজ দোষে।
আজি লিখিয়াছ তুমি,,,,,
অসতী আর কলঙ্কিনী মম ললাটে।
ওরে ভন্ড পাষাণ রাখ শুনে রাখ
লাঞ্ছিতা সবে হাঁকিয়াছে ডাক,
নতুন সকাল যাইবো রচিয়া দেখিস ইতিহাস মলাটে।
হবো সেইদিন ম্রিয়মান,,,,,,,,,।
যেদিন মুখোশ ধারী ভন্ড সমাজ
ছাড়বে তাদের গুন্ডামি রাজ,
পথেঘাটে আর গৃহ পরবাসে, দেবে নারী জাতিকে সম্মান !!!!

 

কবি পরিচিতি – আফতাব মল্লিক
পিতা – ইলিয়াস মল্লিক
মাতা – আতিয়া খাতুন
গ্রাম+পোষ্ট – বাড়বাঁশী
জেলা – পশ্চিম মেদিনীপুর
থানা – খড়গ পুর
পশ্চিমবঙ্গ। ভারত।
শিক্ষাগত যোগ্যতা – ইংরেজিতে স্নাতক ( কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়)
পেশা – শিক্ষকতা ।
৮/৩/২০১৯

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.