এপ্রিল ১৫, ২০২১

সুনামগঞ্জের মাইজবাড়ির ফার্নিচার ব্যবসায়ীর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ 

এম রেজা টুনু সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জ পৌরসভার কাজির পয়েন্ট এলাকার ফার্নিচার ব্যবসায়ী ও সদর উপজেলার কুরবাণ নগর ইউনিয়নের মাইজবাড়ি পূর্বপাড়া এলাকার বাসিন্দাকে মোবাইল ফোনে ডেকে এনে গলাটিপে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহতের নাম মোঃ ঝুনু মিয়া(৪০) তিনি ইউনিয়নের মাইজবাড়ি পূর্বপাড়া গ্রামের মোঃ তেরা মিয়ার ছেলে।
বুধবার রাত তিনটায় ঝুনু মিয়ার মোবাইল ফোনে কে বা কারা ফোন করে তাকে ডেকে বাড়ির সামনে নিয়ে এসে কয়েকজন দুর্বৃত্তরা মিলে হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটায়। খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়,বুধবার রাত ১২টায় ঝুনু মিয়ার ভাতিজা ভীষন অসুস্থ হওয়ায় তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পর রাত ৩টায় নিজ বাড়িতে ফেরার পথে বাড়ির সামনে কিছু দুর্বৃত্তরা তাকে ডেকে এনে গলাটিপে হত্যা করে বস্তাবন্দি করে বাড়ির সামনে লাশ রেখে পালিয়ে যায়। এ সময় দুস্কৃতিকারীরা নিহতের স্ত্রীকে ফোন করে হত্যাকান্ডের কথা বলে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির লোকজন বস্তায় মুড়ানো ঝুনু মিয়ার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। পরে ঘটনাস্থল পর্রিদশন করেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমানসহ পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ। নিহত ফার্নিচার ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন ধরে শহরের কাজির পয়েন্ট এলাকায় সুনামের সহিত ফার্নিচারের ব্যবসা করে আসছিলেন। তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় প্রতিবাদ করায় কিছু দুস্কৃতিকারীদের রোষানলে পড়ে এই হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে পুলিশের ধারনা। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্ট ছাড়া প্রকৃত খুনের ঘটনা উদঘাটন করা সম্ভব নয়।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের পর প্রকৃত ঘটনাটি উদঘাটন করে যারাই এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত তাদেরকে আইনের কাছে সোপর্দ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.