মে ১২, ২০২১

অন্ধকার গোটা সিলেট, পাওয়ার গ্রিডের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুরো সিলেট বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন

সৈয়দ মুহিবুর রহমান মিছলু সিলেট থেকে: সিলেটের কুমারগাঁওয়ে অবস্থিত ১৩২/৩৩ কেভির বিদ্যুৎকেন্দ্রের আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হলে দুপুরে তা নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকাণ্ডে কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।
তবে আগুনে গ্রিডের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়ে পুড়ে দিকবিদিক পড়ে গেছে। আগুনে তেল সরবরাহের ইউনিটসহ বিদ্যুতের তিনটি ইউনিট পুড়ে গেছে। এতে বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণে পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।
এদিকে, আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে দমকলবাহিনীর জয়ন্ত কুমার নামের এক সদস্য আহত হয়েছেন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দুপুর ১টায় সিলেটের সহকারী পরিচালক কুবাদ আলী সরকার জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বেলা ১১টায় আগুন লাগে। খবর পেয়ে দমকলবাহিনীর সাতটি ইউনিট একযোগে চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এখন আমরা মেশিনগুলো ঠান্ডা করার জন্য পানি দিচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, ১৩২/৩৩ কেভির জাতীয় গ্রিড লাইনের বিদ্যুতের তিনটি ইউনিটে পুড়ে গেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে ওয়েল (তেল) সরবরাহ ইউনিটের। আগুন লাগার আগে বিকট শব্দ হয়েছে। আমরা ধারণা করছি, শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। তবে তদন্তে আগুনের সঠিক কারণ জানা যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে, কুমারগাঁও বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ভয়াবহ আগুনের খবর পেয়ে দুপুর একটার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এম এমদাদুল ইসলাম। পরিদর্শন শেষে তিনি বলেন, আগুনের কারণে বিদ্যুৎকেন্দ্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হবে। বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকৌশলীদের দিয়েই এ কমিটি গঠন করা হবে।
তিনি বলেন, ‘যতদ্রুত সম্ভব বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করতে প্রকৌশলীদের একটি দল কাজ শুরু করেছে। তবে আগুনে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় সবাইকে বিদ্যুতের জন্য একটু ধৈর্য ধরতে হবে।’

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলি ফজলুল হক বলেন, আগুনে বিদ্যুৎকেন্দ্রের বড় তিনটি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেছে। এ অবস্থায় পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। আমরা দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করতে কাজ করছি। তবে কতসময় লাগবে এটা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।
আগুনে বিশাল অঙ্কের ক্ষতি হয়েছে তবে এর পরিমাণ কত কোটি টাকা তা তদন্তের পরই বলা যাবে। কেন্দ্রটি মেরামতে ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ দল আসছে বলেও জানান তিনি।

পিডিবির পরিচালক (জনসংযোগ) সাইফুল হাসান চৌধুরী গণমাধ্যমকে জানান, উপকেন্দ্রের মাধ্যমে পিডিবি দুইটি বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। একটি ২২৫ মেগাওয়াট, আরেকটি ২০ মেগাওয়াট। উপকেন্দ্রের আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে এলেও ট্রান্সফরমার, সঞ্চালন লাইনসহ উপকেন্দ্রের অনেক কিছু পুড়ে যাওয়ায় সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাচ্ছে না আপাতত।

কুমারগাও উপকেন্দ্র থেকে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার উপকেন্দ্রে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। ফলে কুমারগাও বন্ধ করে দেওয়াতে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার এলাকার সাবস্টেশনগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এখন উপকেন্দ্রের অন্য তিনটি ট্রান্সফরমার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। সেগুলো ঠিক থাকলে বিকেল নাগাদ বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে। তবে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়নি।

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.