অক্টোবর ২৬, ২০২০

শিশু হত্যা :আফসানা

১ min read

নতুন আলো নিউজডেস্ক: শিশুহত্যা জীববিজ্ঞানের ভাষায় – মনুষ্য সন্তানেরজন্ম এবং বয়ঃসন্ধির মধ্যবর্তী পর্যায়ের রূপ হচ্ছে শিশু। চিকিৎসাশাস্ত্রের সংজ্ঞানুযায়ী মায়ের মাতৃগর্ভেভ্রুণ আকারে অ-ভূমিষ্ঠ সন্তানই শিশু।দারিদ্র-পীড়িত বাংলাদেশে অপুষ্টি স্বাস্থ্য খাতেব্যাপকভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে। অপুষ্টিজনিত কারণে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম হিসেবে পরিচিত শিশুরা বিশ্ব ব্যাংকের জরীপে বিশ্বে শীর্ষস্থান দখল করেছে যা মোটেই কাঙ্খিত নয়। মোট জনগোষ্ঠীর ২৬% অপুষ্টিতে ভুগছে।৪৬% শিশু মাঝারী থেকে গভীরতর পর্যায়ে ওজনজনিত সমস্যায় ভুগছে।৫ বছর বয়সের পূর্বেই ৪৩% শিশু মারা যায়। প্রতি পাঁচ শিশুর একজন ভিটামিন এ এবং প্রতি দু’জনের একজন রক্তস্বল্পতাজনিত রোগে ভুগছে।

বৈবাহিক জীবনে কোন ব্যক্তির যদি পূর্বের সংসারে সন্তান থাকে তাহলে নুতন সংসারে ভূমিষ্ঠ শিশুটি একে-অপরের সৎভাই বা সৎবোন হিসেবে আখ্যায়িত হয়। বাবা-মা উভয়ের মৃত্যুজনিত কারণে শিশু অনাথ হিসেবে সমাজে বেড়ে উঠে।

দারিদ্র-পীড়িত বাংলাদেশে অপুষ্টি স্বাস্থ্য খাতেব্যাপকভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে। অপুষ্টিজনিত কারণে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম হিসেবে পরিচিত শিশুরা বিশ্ব ব্যাংকের জরীপে বিশ্বে শীর্ষস্থান দখল করেছে যা মোটেই কাঙ্খিত নয়।মোট জনগোষ্ঠীর ২৬% অপুষ্টিতে ভুগছে। ৪৬% শিশু মাঝারী থেকে গভীরতর পর্যায়ে ওজনজনিত সমস্যায় ভুগছে।৫ বছর বয়সের পূর্বেই ৪৩% শিশু মারা যায়। প্রতি পাঁচ শিশুর একজন ভিটামিন এ এবং প্রতি দু’জনের একজন রক্তস্বল্পতাজনিত রোগে ভুগছে।

 

২০১৫ সালে ১৯৩ শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। সিলেটে শিশু শেখ সামিউল আলম রাজন (১৪) হত্যা মামলার রায়ে প্রধান আসামি কামরুলসহ চারজনকে ফাঁসি ও সাতজনকে সাত বছর করে সশ্রম কারাদন্ড এবং খুলনায় শিশু রাকিব হত্যা মামলার রায়ে ২ জনকে ফাঁসির আদেশ প্রদান করায় বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি সন্তোষ প্রকাশ করছে। ০৮ নভেম্বর, ২০১৫ এ রায় প্রদান করা হয়। দু’টি মামলার রায় এ সময়ে প্রকাশ পেয়েছে, যা বিচার বিভাগের ইতিহাসে নজিরবিহীন। উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই রাজনকে চুরির অপবাদে এবং গত ৩ আগস্ট রাকিবকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়।দেশের সচেতন জনগনের তুমুল প্রতিবাদ ও আন্দোলনের ফলে দু’টি মামলার দ্রুত নিষ্পত্তি হয়েছে। এছাড়া সরকারের সদিচ্ছাও মামলা দু’টি দ্রুত নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। সমিতি বিশ্বাস করে, অপরাধীরা নৃশংস ও নির্মম হত্যাকান্ড সংঘটন করে যে অসুস্থ বিনোদনে মেতে উঠেছিল, এ রায়ের মাধ্যমে তার পরিসমাপ্তি ঘটবে। আমরা চাই না আর কোন শিশুর জীবনে মর্মান্তিক ও নির্দয় নির্যাতনের ঘটনা ঘটুক। প্রতিটি শিশু নির্যাতন ও সহিংসতামুক্ত পরিবেশে বেড়ে উঠবে, এটি তাদের অধিকার। এ অধিকার অটুট থাকুক- এটিই আমাদের প্রত্যাশা।

লেখক: আফসানা ইয়াসমিন অর্থী

শিশু মনোবিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.