মে ৯, ২০২১

বিএনপিকে একদফা আন্দোলনের পরামর্শ উপদেষ্টাদের

১ min read

ডেস্ক রিপোর্ট::নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যেতে দলের হাইকমান্ডকে পরামর্শ দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যরা। তারা বলছেন, এজন্য আগে বিএনপিকে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। এরপর একদফার আন্দোলনে যেতে হবে।

সোমবার দলের সর্বোচ্চ হাইকমান্ডের সাথে এক ভার্চুয়াল বৈঠকে তারা এসব পরামর্শ দেন বলে বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে।

বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্সের পরিচালনায় বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ ১৩ জন উপদেষ্টা উপস্থিত ছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি চেয়ারপার্সনের একজন উপদেষ্টা জানান, কিভাবে সরকার বিরোধী আন্দোলনকে গতিশীল করা যায়, সে বিষয়ে আমরা দলের হাইকমান্ডকে পরামর্শ দিয়েছি। এজন্য সরকার বিরোধী সকল রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে খুব শিগগির সংলাপ শুরু করারও পরামর্শ দিয়েছি আমরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি চেয়ারপার্সনের আরেকজন উপদেষ্টা জানান, দলের হাইকমান্ডকে নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবিতে একদফার আন্দোলনের যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। এজন্য আমরা আগে বিএনপিকে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর পরামর্শ দিয়েছি। বলেছি, অন্যথায় আন্দোলন হবে না।

বৈঠকের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে সরকার মুখোমুখি অবস্থানে যাচ্ছে বলে বৈঠকে আলোচনা হয়। বলা হয়, হেফাজতের সাথে সরকারের এক সময় খুব ভালো সম্পর্ক ছিলো। এটা আগামীতে আরো ভালো হবে। তাই এটা নিয়ে আমাদের খুব বেশী ভাবার প্রয়োজন নেই।

সূত্রটি জানায়, বৈঠকে বলা হয়, দেশের রাজনীতিতে একটি অশনি সংকেত চলছে। এজন্য দলকে আরো বেশী গতিশীল করার জন্য বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দেয়া হয়।

জানতে চাইলে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার জানান, কিভাবে আন্দোলনকে আরো বেশী গতিশীল করা যায়, সে বিষয়ে আমরা হাইকমান্ডকে পরামর্শ দিয়েছি।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন জানান, ভবিষ্যতে আমরা কি করবো এবং কিভাবে আন্দোলন করবে- এসব বিষয়ে মূলত আলোচনা হয়েছে।

এছাড়া সূত্রে জানায়, বৈঠকে দেশের বিরাজমান রাজনৈতিক, করোনাভাইরাস এবং অর্থনৈতিক, সামাজিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা ও পর্যালোচনা হয়েছে।

বৈঠকে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, অ্যাডভোকেট কামরুল মুনির, অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন, আফরোজা খান রিতা, আবদুস সালাম, মোহাম্মদ শাহজাদা মিয়া, এস এম ফজলুল হক, লে. কর্ণেল (অব.) এম এ লতিফ খান, অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, কবি আবদুল হাই শিকদার, খন্দকার মোক্তাদির হোসেন, আবদুল মান্নান তালুকদার, আবদুল হাই উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, দেশের বিরাজমান পরিস্থিতি, করোনা মহামারীর অবস্থা নিয়ে দলের সিনিয়র নেতাদের সাথে আলোচনা করতে এই ধারাবাহিক ভার্চুয়াল বৈঠক। প্রতিদিন ১৪ থেকে ১৫ জন সিনিয়র নেতা এই বৈঠক থাকবেন। পর্যায়ক্রমে প্রতিদিনের ভার্চুয়াল বৈঠকে অন্যসব উপদেষ্টা ও ভাইস চেয়ারম্যানরা অংশ নেবেন।

আগামী ২১ এপ্রিল পর্যন্ত বৈঠকের সময়সীমা চূড়ান্ত করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এই বৈঠক আরও চলবে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.