অক্টোবর ২৪, ২০২০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে দিনভর উত্তেজনা, ওসি আহত

১ min read

নতুন আলো নিউজ ডেস্ক: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হকের সফর নিয়ে গতকাল দিনভর উত্তেজনা ছিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে । সকাল-সন্ধ্যা হরতাল, ১৪৪ ধারা, প্রতিবাদ-বিক্ষোভ, এর মধ্যেই মন্ত্রী তার পূর্বনির্ধারিত সফরে দুপুরে বিজয়নগর আসেন। মন্ত্রীর বিজয়নগর প্রবেশের মুখে চান্দুরা ডাকবাংলোর মোড়ে পিকেটারদের নিক্ষিপ্ত ইটের আঘাতে আহত হন নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ আহমেদ। মন্ত্রী বিজয়নগর প্রাণী উন্নয়ন কেন্দ্র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রায় দেড় ঘণ্টা সময় অবস্থান করেন। এসময় টানটান উত্তেজনা ছিল। কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ করে সদর সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সমর্থকরা। তারা পুলিশের ব্যারিকেড ডিঙ্গিয়ে উদ্বোধনস্থলে আসার চেষ্টা চালায়। ছায়েদুল হকের এ সফর নিয়ে গত কদিন ধরেই ছিল উত্তেজনা। এলাকার সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে পাশ কাটিয়ে অনুষ্ঠান করার প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগ মন্ত্রীর সফরের দিন হরতালের ডাক দেয়। হরতাল সফল করতে চলে ব্যাপক প্রস্তুতি। এ পরিস্থিতিতে শনিবার রাতে মোতায়েন করা হয় বিজিবি। দেড় শতাধিক পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তিনশ সদস্য মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি পর্যালোচনায় প্রশাসন বিজয়নগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, আশুগঞ্জ ও সরাইল উপজেলায় গতকাল সকাল থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করে। মন্ত্রী-এমপির দ্বন্দ্বে প্রশাসন পড়ে বেকায়দায়। শনিবার জেলা প্রশাসন বৈঠক করে। সেখানে সুধী সমাবেশ বাদ দিয়ে শুধু প্রাণী উন্নয়ন কেন্দ্রটি উদ্বোধন করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। দলীয় নেতাকর্মীদের সেখানে না যাওয়ার ব্যাপারে অনুরোধ করে প্রশাসন। তার পরও উত্তেজনার কমতি ছিল না। ঢাকা-সিলেট ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়া এলাকার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়। বিজয়নগরে ছিল বিজিবি ও র‌্যাবের টহল। দুপুর ১টার দিকে মন্ত্রীকে  নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অর্ধশত গাড়ির একটি বহর অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছে। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল আলম এমএসসি, জেলা প্রশাসক রেজুওয়ানুর রহমান ও পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান।
দুপুরে মন্ত্রীর গাড়িবহর বিজয়নগরের চান্দুরা এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় তাতে হামলার চেষ্টা চালায় ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় সেখানে কর্তব্যরত নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইমতিয়াজ আহমেদ ইটের আঘাতে গুরুত্বর আহত হন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুরে মন্ত্রীর গাড়িবহর চান্দুরা এলাকা অতিক্রম করার সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মন্ত্রীকে উদ্দেশ্যে করে আপত্তিকর স্লোগান দেয়। একপর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গাড়ির সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাইলে পুলিশ এতে বাধা দেয়। এসময় পুলিশের সঙ্গে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে ছুড়ে মারা ইটের আঘাতে পুলিশ কর্মকর্তা ইমতিয়াজ গুরুত্বর আহত হন। এসময় তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
দুপুর ১টা ৫ মিনিটে কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র উদ্বোধন করেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হক।
তার আসার আগেই গেরারগাঁও নামক স্থানে উপজেলা প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রটি ঘিরে অবস্থান নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শতাধিক সদস্য। মন্ত্রী উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন করে কেন্দ্রের ভেতরে এক মতবিনিময় সভায় যোগ দেন। জেলা প্রশাসক মো. রেজওয়ানুর রহমানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শফিকুল আলম এমএসসি, জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্তকর্তা ডা. মো. বজলুর রশিদ। এসময় কার্যালয়ের পাশেই কালোপতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করতে থাকে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এসময় পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। মতবিনিময় শেষে মন্ত্রী চলে যাওয়ার পর উদ্বোধনকৃত প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের পাশেই ২-৩টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।
হরতাল, মোড়ে মোড়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হকের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর সফরের প্রতিবাদে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত হয়েছে। বিজয়নগর উপজেলার বিভিন্ন সড়ক ও এলাকায় যানবাহন ও লোক চলাচল ছিল কম। তবে বিজয়নগরের ওপর দিয়ে যাওয়া ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। ট্রেন চলাচলও ছিল স্বাভাবিক। হরতাল চলাকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ টহল দেয়।
সকাল ৬টা থেকে ১৪৪ ধারা জারি করার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন মোড়ে অবস্থান নিয়ে বহিরাগত লোকজন যেন এ উপজেলায়  ঢুকতে না পারে সেজন্য তল্লাশি চালায়। এর বাইরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, আশুগঞ্জ, সরাইলের বিভিন্ন মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করা হয়।
মোকতাদিরকে অফিসিয়ালি জানানো হয়েছিল: ছায়েদুল
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলায় নবনির্মিত প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিষয়টি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে অফিসিয়ালি জানানো হয়েছিল বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট ছায়েদুল হক। রোববার দুপুর দুটার দিকে প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। মন্ত্রী বলেন, তাকে (মোকতাদির চৌধুরী) অনুষ্ঠানের কথা অফিসিয়ালি জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলার পর আমি বলেছি যে, কোনো দাওয়াত কার্ড করিনি।
সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি আওয়ামী লীগে গ্রুপিং করছি না, মোকতাদিরই গ্রুপিং করে। আমি নেত্রীকে বলেছি যে, তার (মোকতাদির চৌধুরী) ভক্ত যারা তাদেরকেই সে কাছে রাখে, আর অন্যদের বিরুদ্ধে দেয় মামলা। এসময় মন্ত্রী ছায়েদুল হক বিজয়নগর উপজেলা তার সৃষ্টি দাবি করে আরও বলেন, বিজয়নগরের বুধন্তি, চান্দুরা ও হরষপুর ইউনিয়ন আমার নির্বাচনী এলাকায় ছিল। আমার প্রচেষ্টায় বিজয়নগর উপজেলা সৃষ্টি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.