অক্টোবর ২৬, ২০২০

নৌকা ডুবে গেছে, আর টেনে তুলতে পারবেন না: খালেদা জিয়া

১ min read

নতুন আলো নিউজ ডেস্ক: সরকারের ব্যর্থতায় ক্ষমতাসীন দলের নৌকা ডুবে গেছে বলে মন্তব্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, ডুবে যাওয়া এই নৌকা আর টেনে তুলতে পারবেন না। শনিবার গুলশানের ইমানুয়েল হলে ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা’র প্রয়াত সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার পার্টিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন স্থানে উদ্ভোধনের নামে হেলিকপ্টারে যাচ্ছেন, কিছু উদ্বোধন করছেন। আর সেখানে নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের নামে নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছেন। নৌকা যে ডুবে গেছে- এটা বুঝতে পারছেন না। এই নৌকা ডুবে গেছে, এই নৌকাকে আর আপনার হাজার লোক দিয়েও টেনে তুলতে পারবেন না। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি পুনর্ব্যক্ত করে খালেদা জিয়া বলেন, আমি বলবো একটা নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনুন। সেই নির্বাচন হতে হবে সহায়ক সরকারের অধীনে, হাসিনার অধীনে এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না, হতে দেয়া হবে না। কোনো দল অংশগ্রহণ করবে না। হাসিনাকে বাদ দিতেই হবে, ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতেই হবে। তিনি বলেন, সামনে ঈদ। এই ঈদে মানুষ গ্রামে যায়। দেখেছেন রাস্তা-ঘাটের কি দুরবস্থা। গতকাল পত্রিকায় ছবি দিয়েছে পাঁচ ঘণ্টার রাস্তা যেতে ১০ ঘন্টা সময় লাগছে। আর যানজট থাকলে ১৫-২০ ঘণ্টা লেগে যায়। গাড়িতে যাত্রীরা কী দুরবস্থার মধ্যে থাকতে হচ্ছে। মহাসড়কে পাবলিক টয়লেট করা উচিৎ বলে মনে করেন তিনি। পাবর্ত্য জেলায় পাহাড় ধসে সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করে খালেদা জিয়া বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে যেভাবে ভূমিধসে মানুষগুলো মারা গেল, তাদের উদ্ধার করা, তাদের পূণর্বাসনে বর্তমান সরকারের কোনো চিন্তা-ভাবনা আমরা দেখছি না, কোনো দায়িত্ববোধও দেখছি না। জনগণের নয়, আওয়ামী লীগের প্রধানমন্ত্রী বিদেশ ভ্রমণে ব্যস্ত। যেখানে চট্টগ্রামের রাঙামাটিতে ঘটনা ঘটলো ১০টা কত মিনিটে ঘটলো, সেটা জানার পরও বেলা ১২টা কত মিনিটে হাসিনা দেশ ত্যাগ করলেন। কেন? দেশে এতো বড় ঘটনা, এখন পর্যন্ত ১৫২ জন মারা গেছে, আরো হয়ত মারা যাবে কিংবা অনেকের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এতো বড় ঘটনার পর প্রধানমন্ত্রী কীভাবে বিদেশে যান। এটা কী জনগণের প্রতি তার (শেখ হাসিনা) দায়িত্ববোধ? আজকে(শনিবার) তিনি দেশে ফিরেছেন। এসে মায়াকান্না দেখাবেন হয়তো। চালের মূল্য বৃদ্ধির প্রসঙ্গ টেনে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, চালের দাম যে এতো বৃদ্ধি হয়েছে তার জন্য কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না সরকার, কেন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। দেশে সবচেয়ে নিম্নমানের মোটা চালের দাম হলো ৫০ টাকা কেজি। এছাড়া সব জিনিসের দাম বেড়েছে। বিদ্যুৎ-গ্যাস-পানির দাম বেড়েছে। বাজেটের সমালোচনা করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাজেটে কত কর বাড়িয়েছে, ভ্যাটের পরিধি বাড়িয়েছে। যে ১৫% ভ্যাট প্রস্তাব করেছেন, সেটার কোনো প্রয়োজন নাই। ব্যাংকে এক লাখ টাকা জমা রাখলে সেখানে ৮ ‘শ টাকা কেটে নিয়ে যাবে। কেন মানুষের অর্থ থেকে এটা কাটছে? ব্যাংকের টাকা চুরি করেছে, দুর্নীতি হয়েছে। বেসিক ব্যাংকে টাকা লুট হয়েছে, এখন মানুষের পকেট কেটে তা ব্যাংকে দেয়া হচ্ছে। এসব বন্ধ করুন। প্রয়াত শফিউল আলম প্রধানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনও করেন বিএনপি চেয়ারপারসন। উল্লেখ্য, গত ২১ মে মারা যান শফিউল আলম প্রধান। মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে খালেদা জিয়াসহ জোট নেতারা মোনাজাতে অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.