অক্টোবর ২৭, ২০২০

খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নর্থ ইষ্ট স্বেচ্ছাসেবক দল

১ min read

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে ঢাকায় ফেরার পথে ফেনী শহরে আওয়ামী সন্ত্রাসী কর্তৃক তাঁর গাড়িবহরের হামলা ও পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে ২ টি গাড়িকে জ্বালিয়ে দেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন যুক্তরাজ্য নর্থ ইষ্ট স্বেচ্ছাসেবক দল ।
আজ সন্ধ্যায় হোয়াইট চ্যাপল সোনার গাঁ রেষ্টুরেন্টে অনুষ্টিত প্রতিবাদ সভা নর্থ ইষ্ট স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সুমন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সাধারন সম্পাদক আলিফ মিয়ার পরিচালনায় প্রধান অথিতি ছিলেন যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিন এবং প্রধান বক্তা ছিলেন যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারন সম্পাদক মোঃ আবুল হোসেন ৷বিশেষ অথিতি ছিলেন যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি মিছবাহ বিএস চৌধুরী,শরিফুল ইসলাম,শাহ জামাল,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আজিম উদ্দিন,ইষ্ট লন্ডন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নুরুল আমিন আকমল,মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারন সম্পাদক শেখ মোঃ সাদেক,যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া,সহ সাংগঠনিক জাহিদুর রহমান,মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক এমরুল আহমেদ,যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আজিবুর রহমান,মফচ্ছল আলী,লন্ডন মহানগর বিএনপিনেতা আব্দু রব,সাবেক ছাত্রনেতা ইস্তাবর আলী,তাছাড়াও নর্থ ইষ্ট স্বেচ্ছাসেবক দলের উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি ফরহাদ আলম,যুবদল নেতা জাহির আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুবেল আহমেদ,রুমেল আহমেদ,সেলিম মিয়া,আশরাফ আহমেদ,শাহিন আহমেদ,আকিক মিয়া,শাহজাহান,আতিক,রিয়াদ আহমেদ,ছালেহ মিয়া,সুমন মিয়া,মামুন মিয়া,ম্যাস ভাই,রানা ভাই,দিদার মিয়া সহ আরো অনেকে ৷প্রধান অথিতি নাসির আহমেদ শাহিন বলেন, বাংলাদেশের একমাত্র গণতন্ত্র রক্ষার আপোষহীন নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরে হামলা ও পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে নেত্রীর মনোবল দুর্বল করা যাবে না। তিনি এই বর্বর সন্ত্রাসী কার্যকলাপের নিন্দা জানিয়ে বলেন, দেশের প্রতিটি শ্রেণির মানুষ আজ ফাসিস্ট আওয়ামী বাকশালি সরকারের দুঃশাসনের কবলে। আওয়ামীলীগ এখন সন্ত্রাসীদের আখড়ায় পরিনিত হয়েছে। গুম, হত্যা, নির্যাতন-নিপিড়নের মাধ্যমে দেশে একদলীয় শাসন বাকশাল কায়েম করা হয়েছে।নিজ মাতৃভূমিতে স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার মৌলিক অধিকারটুকুও হরণ করা হয়েছে।তিনি বলেন, অচিরেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে ।

প্রধান বক্তা মোঃ আবুল হোসেন বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে অবৈধ সরকারের সাজানো মসনদে ভূমিকম্প শুরু হয়েছে। বিএনপির গণজোয়ার দেখে সরকার দিশেহারা হয়ে বেগম খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরের উপর আওয়ামী বাকশালি সন্ত্রাসী বাহিনীদের লেলিয়ে দিয়েছে । তিনি বলেন, অবৈধ প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনারা সরাসরি তত্ত্বাবধানে আওয়ামী বাকশালি সন্ত্রাসীরা বাসে পেট্রোল বোমা মেরে এই বর্বর তাণ্ডবলীলা চালিয়েছে। গাড়িবহরে হামলা ও পেট্রোল বোমা নিক্ষেপের ঘটনায় জড়িত দুষ্কৃতিকারীদের একদিন আইনের কাঠগড়ায় দাড়াতে হবে। তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সরকারের হুমকিতে কখনো ভীত নয়। তাই আওয়ামী সন্ত্রাসীদের সকল বাধা বিপত্তি অতিক্রম করে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়ে সহমর্মিতা জানিয়েছেন।

অন্যান্য সব বক্তারা এই বর্বর হামলার তীব্র নিন্দা জানান এবং আহত বিএনপির নেতাকর্মী ও সাংবাদিকদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে ।তারা বলেন অবৈধ সরকারের সীমাহীন নির্যাতনে আজ দেশের মানুষ দিশেহারা। আওয়ামী বাকশালি সন্ত্রাসীরা শত বাধাবিপত্তি সৃষ্টি করেও বিএনপির অগ্রযাত্রাকে দাবিয়ে রাখতে পারবে না। কারণ দেশের মুক্তিকামী জনগণ সর্বদা বিএনপির সাথে। বিএনপি হলো দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক। দেশনেত্রী বেগম খালাদা জিয়ার গাড়ি বহরের উপর সন্ত্রাসী হামলারকারীদের পরিচয় ছবিসহ দেশের বিভিন্ন পত্রিকায় এসেছে । তিনি বলেন, ২০১৫ সালে একই কায়দায় সারা দেশে পেট্রোল বোমা মেরে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা নিরীহ মানুষকে হত্যা করেছে।পেট্রোল বোমা দিয়ে নিরিহ মানুষ হত্যা কারা বাকশালি সন্ত্রাসিদের পুরানো অভ্যাস। তিনি অভিলম্বে হামলাকারী সন্ত্রাসিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবী করেন ।

সভায় বক্তারা, বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, অভিলম্বে পেট্রলবোমা নিক্ষেপকারী সন্ত্রাসিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি না দিলে যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীরা তার দাঁতভাঙ্গা জবাব দিবে। তারা বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সর্বপ্রথম নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার দাবী জানিয়েছিলেন। আর আওয়ামী বাকশালিরা তাদের দোসরদের সাথে সুরমিলিয়ে এই নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের নিজ আবাসস্থল থেকে বিতাড়নের পক্ষ অবস্থান নিয়েছিল। অবৈধ সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারনে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সম্পূর্ণ ভাবে ব্যর্থ হচ্ছে। সভায় বক্তারা বলেন, আওয়ামী বাকশালিদের সন্ত্রাসী হামলার দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীরা সর্বদা প্রস্তুত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.