নভেম্বর ২৬, ২০২০

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রচডেল বিএনপির প্রতিবাদ সভা

১ min read

রচডেল থেকে সৈয়দ মিজান :আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবীর জন্য রচডেল প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত । অবিলম্বে কারান্তরীণ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় আপোসহীন নেত্রী, গণতন্ত্রের জননী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবী জানিয়ে রচডেল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বি এন পির নেতৃবৃন্দর প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয় অদ্য ২১জুন  বৃহস্পতিবার রাত ১২টার সময় স্থানীয় কমিউনিটি হলরুমে রচডেল বিএনপির সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আসরাফ আহমদের সভাপতিত্বে এ রচডেল বি এন পির সাবেক সিনিয়র যুগ্নআহবায়ক সৈয়দ মিজানের পরিচালনায় অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাজ্য বি এন পির সাবেক সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়নাল আবেদিন । বক্তব্য রাখেন রচডেল বি এন পি নেতা সৈয়দ ছরকুম ইসলাম, আজিজুর রহমান , রচডেল যুবদল নেতা সদরুল ইসলাম যুবনেতা আব্দুল কাইয়ুম রচডেল জাসাস সভাপতি আজির উদ্দিন, রচডেল বি এন পি নেতা আব্দুল আজিজ যায়েদ, আব্দুল হাসান, সৈয়দ জুনাব আলী জাসাস নেতা ইসলাম উদ্দিন, রচডেল যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম উদ্দিন , যুবদল নেতা জাকির আহমদ সহ অনেকেই বক্তারা বলেন প্রতিহিসংসা ও জিঘাংসার বশবর্তী হয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত এক সাজানো কাল্পনিক মামলায় তিনবারের প্রধানমন্ত্রী এবং ৭১বছরের বয়োজ্যেষ্ঠ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অর্থ আত্মসাতের ভিত্তিহীন মিথ্যা অভেযোগ সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে পাঁচ বছরের কারাদন্ড দিয়ে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো পরিত্যক্ত স্যাঁতস্যাঁতে জরাজীর্ণ ভবনে নির্জন কারবাসে পাঠানো হয়েছে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের ২ কোটির বেশি টাকা আত্মসাতের অভেযোগ আনা হয়েছে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে। অথচ উক্ত ট্রাস্টের কোনো অর্থই আত্মসাৎ হয়নি। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে এক খন্ড জমি ক্রয় ছাড়া বাকি এক টাকাও কোথাও খরচ হয়নি। বরং সেই ২ কোটি টাকা এখন সুদে আসলে ৬ কোটি হয়ে ট্রাস্টের নামেই ব্যাংকে পড়ে আছে। উক্ত ট্রাস্টের গঠন এবং পরিচালনার সঙ্গে বেগম খালেদা জিয়ার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ সম্পর্ক নেই বা ছিল না। তিনি কখনও উক্ত ট্রাস্টের চেয়ারম্যান কিংবা সদস্য ছিলেন না। উক্ত ট্রাস্টের ব্যাংক একাউন্ট পরিচালনায় তিনি স্বাক্ষরকারী ছিলেন না এবং উক্ত ট্রাস্টের কার্যাদি, লেন-দেন, হিসাব-নিকাশ ও একাউন্ট পরিচালায় তার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বা ছিল না। অর্থাৎ আত্মসাৎ তো দূরের কথা বেগম জিয়া বা তার পরিবারের কোনো সদস্য উক্ত একাউন্ট থেকে এক টাকাও উত্তোলন করেননি।শুধু রাজনিতীক ভাবে জিয়া পরিবার কে ও বি এন পি কে ধ্বংস করার জন্য এই মামলার রায় আমরা অবৈদ্য সরকারের কাছে জোরদারী জানাচ্ছি আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি চাই এবং দিতে হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.