নভেম্বর ১, ২০২০

সুরমায় কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ, গণধোলাই দিয়ে ৩ জনকে পুলিশে সোপর্দ

১ min read

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: সিলেট নগরীর প্রবেশদ্বার দক্ষিণ সুরমার তেলিবাজারে প্রেমিকাকে জোরপূর্বক অপহরণকালে প্রেমিকসহ ৩জনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে জনতা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১টায় তেলিবাজার পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, প্রেমিক ইমরান আহমদ (২৬) চন্ডিপুল সিএনজি স্ট্যান্ডের চালক। সে গোটাটিকর এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে। প্রাথমিক শিকারোক্তিতে ইমরান পুলিশকে জানিয়েছে, নুরজাহান মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের এক ছাত্রীর সাথে তার দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। কয়েকদিন থেকে মেয়ে ছেলেকে এড়িয়ে চলায় ছেলে তার বন্ধুদের নিয়ে মেয়ের গতিবিধি অনুসরণ করে আসছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে মেয়ে কলেজ থেকে নানার বাড়ি বলদী যাবার পথে সিএনজি নিয়ে তেলিবাজারে আগে থেকে ওঁত পেথে থাকা প্রেমিক ইমরান বন্ধুদের সহায়তায় ছাত্রীকে অপহারক করে পালায়। ঘটনা প্রত্যক্ষকারীরা এক পর্যায় গাড়িটি অন্যগাড়ি দিয়ে দাওয়া করে সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়কের লতিপুর নামকস্থান থেকে অপহরণকারীদে আটক করে তেলিবাজার পয়েন্টে আনলে জনতা গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দেয়।

ঘটনাস্থলের অনেকের সাথে কথা বলে জানা যায়, এ ধরনের ঘটনা প্রায় ঘটতে শোনা গেলেও হাতেনাতে ধরা যাচ্ছিল না। সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়ক নির্জন থাকায় এ সড়কে অপরাধ দিনদিন বেড়েই চলেছে। ওই এলাকার থেকে এ পর্যন্ত কয়েকটি অজ্ঞাতনামা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। যা এখনো পরিচন শনাক্ত করা যায়নি।

এদিকে, উত্তেজিত এলাকাবাসী ঘটনাটি শোনে থানায় ভীড় করে অপহরণকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

এ ব্যাপারে কথা হয় দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ খায়রুল ফজলের সাথে। তিনি বলেন, এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতা আটক করে পুলিশে দেয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.