1. bnp786@gmail.com : editor :
  2. sylwebbd@gmail.com : mit :
  3. nurulalamneti@gmail.com : Nurul Alam : Nurul Alam
  4. mrafiquealien@gmail.com : Rafique Ali : Rafique Ali
  5. sharuarprees@gmail.com : Sharuar : Mdg Sharuar
  6. Mahareza2015@gmail.com : Muhibur reza Tunu : Muhibur reza Tunu
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করলেন!   নবীগঞ্জে প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে,ঠাই হলো কারাগারে! হবিগঞ্জের বাহুবলে ‘কুখ্যাত ডাকাত’ সাহাব উদ্দিন গ্রেপ্তার! হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে গাড়ী আটকে ছিনতাই মামলার ৩ আসামী গ্রেফতার হবিগঞ্জ জেলা তথ্য অফিসের ওয়েরিয়েন্টেশন কর্মশালায় শিশু ও নারী উন্নয়নে সভা অনুষ্ঠিত।   হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ের হাওরে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার হবিগঞ্জের মাধবপুরে ধর্মঘর বিজিবির অভিযানে ৯৫ পিছ ইয়াবাসহ গ্রেফতার ১ ছাতক থেকে অপহরণ হওয়া শিশু ইয়াছিন আহমদ ঢাকায় উদ্ধার টাঙ্গাইলে কালিহাতী উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে এক বৃদ্ধ নিহত শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযাগে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

নেতাকর্মীদের মামলা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন নয়: ফখরুল

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ডেস্ক রিপোর্ট::৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে, তা প্রত্যাহারের আগে কোনো নির্বাচন কমিশন গঠন ও নির্বাচন হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিবিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

 

শনিবার (১১ আগষ্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

 

 

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা স্পষ্টভাষায় বলতে চাই বাংলাদেশে আর সেরকম নির্বাচন হবে না। নির্বাচন কমিশন গঠন হবে ঠিক, যখন সত্যিকার অর্থে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠণের ব্যবস্থা করা হবে। সেই কমিশনের অধীনে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে হবে। আর তার আগে অবশ্যই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। একই সাথে শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে বন্দি রাখা রাজনৈতিক নেতা ও কর্মীদেরকে মুক্তি দিতে হবে। আর ৩৫ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা আছে তা প্রত্যাহার করতে হবে। তার আগে কোনো নির্বাচন হবে না।

 

 

মির্জা ফখরুল বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগও তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার পক্ষে ছিলো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটাকে বাদ দিয়েছেন। শুধুমাত্র আজীবন আওয়ামী লীগের দলীয় সরকারের মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার জন্য। যেই নির্বাচনে আগের রাতে ভোটকেন্দ্র দখল করা হবে।

 

 

ফখরুল বলেন, আজকে আমরা একটা কঠিন সময় অতিক্রম করছি। ১৯৭১ সালে স্বাধনীতা যুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা যে অধিকারগুলো অর্জন করেছিলাম, আজকে সেগুলোকে সম্পুর্ণভাবে কেড়ে নেয়া হয়েছ। তিনি বলেন, ১৯৯০ সালে একটি গণঅভ্যুর্থানের মধ্য দিয়ে যে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে নিয়ে এসেছিলাম সেই গণতন্ত্রকে ধংশ করে দেয়া হয়েছে।

 

তিনি বলেন, আমাদের রাষ্ট্রকে একটা ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে পরিণত করা হয়েছে। যেখানে মানুষের কোনো অধিকার নেই, মানুষ তার কোনো অধিকার পূরণ করতে পারছে না। এমনকি জণগন তাদের ভোটও দিতে পারছে না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর হয়ে গেছে। দুর্ভাগ্য আমাদের, শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের যে ব্যবস্থা সেই ব্যবস্থাকে আমরা এখন পযন্ত সুনিশ্চিত করতে পারিনি। কার জন্য পারিনি? আওয়ামী লীগের জন্য পারিনি। কারণ এই সরকার চায় দেশে একটিমাত্র দল থাকবে, একটি মাত্র পরিবার থাকবে।

 

তিনি বলেন, তত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমে এদেশের মানুষ একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করেছিলো। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সংসদে সেটা পাশ করেছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতার আসার কিছুদিনের মধ্যেই সম্পূর্ণ জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। ফলে তারা চিন্তা করেছে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে আমরা কোনোদিন ক্ষমতায় যেতে পারবো না। তাই তারা তত্বাবধায়ক সরকারের বিধানটাকে এতরফাভাবে বাদ দিয়েছে। প্রতিটি রাজনৈতিক দল এমনকি আওয়ামী লীগও ১৯৯৬ সালে এর পক্ষে ছিলো।

 

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সরাজীবন মানুষের মুক্তির জন্য সংগ্রাম করেছেন। আজ তিনি গৃহবন্দি। এই মহান নেত্রী বাংলাদেশে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যে অবদান রেখেছেন তা বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ থাকবে।

 

তিনি বলেন, এক সময় বাংলাদেশে, বিশেষ করে এদেশের গ্রামের সংস্কৃতি ছিলো আমরা মেয়েদের লেখাপড়া করাতে চাইতাম না। কম বয়সে মেয়েদের বিয়ে দিয়ে দেয়া হতো। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সেটার বিরুদ্ধে আইন করেছেন। তিনি সবচেয়ে বড় যে কাজটি করেছিলেন সেটি হলো, দশম শ্রেণী পযন্ত মেয়েদের বিনামূল্যে লোখাপড়ার ব্যবস্থা করা। তাদের জন্য বেগম খালেদা জিয়া বৃত্তি প্রদানের ব্যবস্থা করেছিলেন।

 

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

 

Comments are closed.

এই ধরণের আরো খবর

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,৫৪৫,৮০০
সুস্থ
১,৫০৪,৭০৯
মৃত্যু
২৭,২৭৭
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
১,৫৬২
সুস্থ
১,৬০৩
মৃত্যু
২৬
স্পন্সর: একতা হোস্ট
© All rights reserved © 2021 notunalonews24.com
Design and developed By Syl Service BD