1. bnp786@gmail.com : editor :
  2. sylwebbd@gmail.com : mit :
  3. nurulalamneti@gmail.com : Nurul Alam : Nurul Alam
  4. mrafiquealien@gmail.com : Rafique Ali : Rafique Ali
  5. sharuarprees@gmail.com : Sharuar : Mdg Sharuar
  6. Mahareza2015@gmail.com : Muhibur reza Tunu : Muhibur reza Tunu
বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ক্ষতিগ্রস্থ উপকূলবাসীর জন্য ফ্রি মাতৃস্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প। সিলেটের বিয়ানীবাজারে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় পথচারীর মৃত্যু। হবিগঞ্জে হাওর বাচাও আন্দোন কমিটি গঠন মিজবাহ উল বারী আহবায়ক মীর দুলাল সদস্য সচিব। টেকসই বেড়িবাঁধ পুনঃনির্মাণ ও সুপেয় পানির দাবীতে শ্যামনগরে মানববন্ধন। সুনামগঞ্জে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগে নির্বাহী কর্মকর্তা মুক্তাদির হোসেন কে প্রত্যাহার। সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন, সভাপতি সামছুল, সম্পাদক মাহফুজ নির্বাচিত। রাজবাড়ীতে সহকারী শিক্ষিকা কে লাঞ্চিত, প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার। মাদারীপুর জেলা সাংবাদিক সোসাইটির আনন্দভ্রমণ। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি)-র ছাত্রীরা, ২ ঘণ্টা আন্দোলন শেষে শাবি উপাচার্যের আশ্বাসে রাত আড়াইটায় হলে ফিরলেন।।   বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন ১৯ জানুয়ারি।

চুর সন্দেহ ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে যুবককে অমানুষিক নির্যাতন।

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১

শাকিল মোল্লা রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি:: গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ায় চুর সন্দেহ রাসেল শেখ (২০) নামের এক অসহায় যুবককে বর্বর অমানুষিক নির্যাতর করে টানা ৬ দিন ঘরের মধ্যে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য উসমান কাজীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার দিনগত রাত সারে ১১টার দিকে তালাবদ্ধ ঘর থেকে রাসেলকে উদ্ধার করে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।

 

রাসেল গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ দৌলতদিয়া সৈদাল পাড়ার নজরুল শেখের ছেলে। এ ঘটনায় রাসেলের খালা শুকুরজান বেগম (৫০) বাদি হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এদিকে উদ্ধারের পর ইউপি সদস্যের লোকজনের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন রাসেলের পরিবারের সদস্যরা।

 

 

নির্যাতনের শিকার রাসেল জানায়, সে ঢাকায় রিক্সা চালায়। তার বাবা মানুসিক রোগী। মা কয়েকদিন আগে জীবিকার তাগিতে সৌদি আরবে গেছেন। সৌদি আরবে যাওয়ার আগে চলতি মাসের প্রথম দিকে তার মায়ের সাথে দেখা করে ঢাকায় ফেরার সময় দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ইউপি সদস্য উসমান কাজীর নেতৃত্বে কয়েক যুবক তাকে তুলে নিয়ে এসে দৌলতদিয়া কফিলউদ্দিন তেলের পাম্পের দোতালায় নিয়ে গিয়ে হাত-পা বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন করে বলে তুই অটোরিক্সা চুরি করেছিস। এসময় সে কোন চুরির সাথে জড়িত নয় দাবি করলে তারা আরো নির্যাতন চালায়। কোন ভাবেই সে স্বীকার না করায় তাকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় নৌকায় করে পদ্মা নদীতে নিয়ে যায় এবং বলে যাদের নাম বলতে বলব তাদের নাম তুই বলবি, আর তা না হলে তোকে কেটে টুকরো টুকরো করে নদীতে ফেলে দিব। এক পর্যায়ে সে প্রাণভয়ে তাদের বলে দেয়া নাম বলে এবং তারা সেটি ভিডিও করে রেখে ছেড়ে দেয়।

 

এ পরিস্থিতিতে গত ২০ নভেম্বর দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে অটোচুরির বিচার বসে। সেখানে হাজির হয় রাসেল। রাসেলের স্বীকারোক্তি ওই ভিডিও প্রমান হিসেবে উপস্থাপন করা হলে চুরিতে যাদের নাম উল্লেখ করা হয় তার মধ্যে এক ব্যাক্তি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেয়া হয় এবং কোন রায় ছাড়া বিচার শেষ হয়। এরপর উসমান কাজী রাসেলকে নিয়ে এসে তার বাড়িতে একটি কক্ষে তালাবদ্ধ করে রাখে। রাসেল বলেন, ‘আমাকে আটকে রাখা কালে খেতেও দেয়নি। খাবার চাইলেই শুরু হতো অমানুষিক নির্যাতন।

 

রাসেলের খালা শুকুরজান বেগম জানান, তার ভাগিনাকে উদ্ধারের জন্য পুলিশের কাছে আসতে চাইলে তাকে এক ব্যাক্তি পরামর্শ দেন যে ৯৯৯ এ ফোন করে বিষয়টি জানালে পুলিশ এসে উদ্ধার করবে। সে পরামর্শে তিনি শুক্রবার রাতে ৯৯৯ এ ফোন করে জানান। পরে ওই রাতেই গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ রাসেলকে উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এসময় মকবুল কাজী নামের এক ব্যাক্তিকে আটক করে পুলিশ।

 

দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য উসমান কাজী বলেন, রাসেল যে অটো চুরি করেছে তার স্বীকারও করেছে। তারপরও একজনকে এ ভাবে আটক রাখতে পারেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিচার সভায় উপস্থিত গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র মো. নজরুল ইসলাম মন্ডল, দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডল, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ আলী মোল্লাসহ সকলেই অভিযুক্ত রাসেলকে আমার জিম্মায় দেয়। এবং আমি তাদের অনুরোধেই রাসেলকে আমার বাড়িতে রেখে দেই।

 

এ প্রসঙ্গে দৌলতদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মন্ডল জানান, পরিষদে বিচারের আবেদন পড়েছিল, তাই বিচার সভার আয়োজন করা হয়েছিল। বিচার সভায় কাউকে আটকে রাখার কথা বলা হয়নি। কি কারণে ইউপি সদস্য উসমান কাজী তাকে আটকে রেখেছিলেন তা আমার জানা নেই। পুলিশ উদ্ধারের পর আমি বিষয়টি জেনেছি।

 

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, খবর পেয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে রাসেলকে উদ্ধার ও একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় উদ্ধার হওয়া রাসেলের খালা একটি মামলা দায়ের করেছেন। অপরদিকে উদ্ধারের পর রাসেলের পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় রাসেলের নানী জহুরা খাতুন (৭০) বাদি হয়ে আরো একটি মামলা দায়ের করেছেন। উভয় মামলার পলাতক আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলমান আছে।

Comments are closed.

এই ধরণের আরো খবর

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,৬৩২,৭৯৪
সুস্থ
১,৫৫৩,৭৯৫
মৃত্যু
২৮,১৬৪
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট
© All rights reserved © 2021 notunalonews24.com
Design and developed By Syl Service BD