জুন ২৩, ২০২১

যুক্তরাজ্যের বার্ণলীতে ” চরমপন্থী ভাবনায় প্রাথমিক হস্তক্ষেপ এ কমিউনিটির করণীয়” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

১ min read

বার্নলী প্রতিনিধি :ব্রিটিশ বাংলাদেশী কমিউনিটি এলায়েন্স আয়োজিত ” চরমপন্থী ভাবনায় প্রাথমিক হস্তক্ষেপ এ কমিউনিটির করণীয় বিষয়ের উপর এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় যুক্তরাজ্য বার্ণলী শহরের পেরিস হলে।

এলায়েন্সের সভাপতি বারিষ্টার আফজাল জামি সৈয়দ আলীর সভাপতিত্বে ও চীফ আডভাইজার মুজাক্কির আলীর পরিচালনায় শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন হাফেজ নজরুল চৌধুরী, স্বাগত বক্তব্য রাখেন এলায়েন্সের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুন নূর,প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউরোপীয়ান পার্লামেন্টের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ট্রেড চেয়ারম্যান ডঃ সাজ্জাদ করিম এম ই পি,প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন ব্রিটিশ সরকারের মাননীয় হুইপ আন্ড্রো স্টিভেন্সন এমপি,বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইউরোপীয়ান পার্লামেন্ট মেম্বার ওয়াজিদ খানঁ।

অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন সাবেক হাইনবার্ন কাউন্সিল মেয়র লান্কাশায়ার কান্ট্রি কাউন্সিলার মুনসিফ দাদ,সাবেক ডেপুটি মেয়র আয়ুব খাঁন,টেলমাম্মা প্রিভেনশন প্রোগ্রামের ট্রেইনার মোহাম্মদ আলী আমলা, রচডেল ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্টের চেয়ারম্যান মশাহিদ আলী,কাউন্সিলার মোহাম্মদ জাফর খাঁন,সবাইকে ধন্যবাদ দিয়ে বক্তব্য রাখেন এলায়েন্সের ট্রেজারার আবিদুল ইসলাম আরজু প্রমূখ।

সেমিনারের মূল প্রবন্ধে বারিষ্টার জামি বলেন, আমাদের কমিউনিটির মাঝে একধরণের অস্বীকার করার প্রবণতা রয়েছে যেটা একটা সমস্যা সমাধান করার প্রয়াসে প্রাথমিক প্রদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়ায়। আমাদের চিন্তা-ধারায় এমন কিছু বিষয় রয়েছে যেগুলো উগ্রবাদী-আতঙ্কবাদী কর্মকান্ডগুলো মেনে নেয়ার প্রাথমিক পটভূমি তৈরী করে দেয়,যাতে করে একজন ভালো ছাত্র বা নিঃসংশয়ী মানুষ রাতারাতি বদলে গিয়ে এমন কিছু ভয়ানক কাজ করে বসে,যেকোনো ভাবেই তা প্রতিহত করার সুযোগ থাকেনা। চিন্তার প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে আমাদেরকে এই আতঙ্কবাদীতার মোকাবেলা করতে হবে।যাতে করে আমরা বৈধ ক্ষোভগুলোকে ধ্বংসাত্মক ধারায় প্রবাহিত না করে গঠনমূলক ভাবে আমাদের সমাজ,দেশ এবং আদর্শিক অবস্থানের জন্য কাজ করতে পারি।

সাজ্জাদ করিম এমপি বলেন,কেউ আমাদের অনুভূতির কথা জানতে চায়না।এই সমস্যাটির জন্ম আমরা দেইনি।এটা সমাধানের জন্য বাদবাকি সমাজ আর রাষ্ট্রের চেয়ে আমাদের অতিরিক্ত কোনো ভূমিকা নেই। ৮০র দশকের শেষের দিকে আমি যখন লন্ডন উনিভার্সিটিতে পড়তে যাই, তখন দেখলাম আমাদের সেরা প্রতিভাবানদের আফগান যুদ্ধে নেবার জন্য উৎসাহ-প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। আমি তখনি এর প্রতিবাদ করেছিলাম।এস্টাব্লিশমেন্ট তখন আমাদের বিরোধিতা করলো। একটা সমস্যার সমাধান করতে হলে তার জন্মের প্রেক্ষিতটাও সবার বোঝা উচিত।

অ্যান্ড্রু স্টিফেনসন এমপি বলেন, স্থানীয় কমিউনিটি গুলো তাদের নিজেদের মত করে উগ্রবাদি সমস্যা সমাধানে উদ্যমী হওয়ার উপর গুরুত্ব দিতে হবে এবং প্রিভেন্ট প্রোগ্রামের দুর্বলতার দিক গুলো সম্পর্কে সচেতনতা তৈরী করতে হবে।

ইউরোপিয়ান পার্লিয়ামেন্টের সদস্য ওয়াজিদ খান বলেন,উগ্রবাদি আচরণের উপর রাগান্বিত হয়ে আমি রাজনীতিতে যাই, যখন আমার জন্ম আর বেড়ে উঠার শহর বার্নলিতে আমাকে “পাকি” গালি শুনতে হলো।আজ আমি গর্বের সাথে বলতে পারি বার্নলিতে উগ্রবাদী সাম্প্রদায়িক ব্রিটিশ পলিটিকাল পার্টি বিএনপির কোনো কাউন্সিলর নেই।একই কারণে আজ আমি প্যালেসটিন বা রোহিঙ্গ্যাদের জন্য ভূমিকা রাখতে পারছি।

উন্মুক্ত প্রশ্ন উত্তর আলোচনা পর্বে জঙ্গিবাদের উত্থানে রাষ্ট্রীয় ব্যার্থতা আর মদদের উপর আলোকপাত করতে যেয়ে বাংলাদেশের বিষয়ে আলোকপাত করেন প্রশ্নকারী। সেখানে যেভাবে বর্তমান সরকার রাজনৈতিক সুবিধা হাসিলের উপায় হিসাবে জঙ্গিবাদ বিরোধী কর্মকান্ডকে ব্যবহার করছে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দ্বারা সাজানো নাটকের মাধ্যমে পূর্ব থেকে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের হত্যা করার যে অভিযোগগুলো আছে সেগুলো সত্য হলে বাংলাদেশের ভবিষ্যত পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.