1. bnp786@gmail.com : editor :
  2. sylwebbd@gmail.com : mit :
  3. nurulalamneti@gmail.com : Nurul Alam : Nurul Alam
  4. mrafiquealien@gmail.com : Rafique Ali : Rafique Ali
  5. sharuarprees@gmail.com : Sharuar : Mdg Sharuar
  6. Mahareza2015@gmail.com : Muhibur reza Tunu : Muhibur reza Tunu
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
তুরণ মিয়ার বোনের মৃত্যুতে আবুল কালাম আজাদ এর শোক প্রকাশ। পীরগঞ্জে গলায় ফাঁস লাগিয়ে বৃদ্ধের আত্মহত্যা ছাত‌কে ২৫ বোতল মদসহ সিএনজি চালক আটক। সিলেটে লকডাউনের ১০ম দিনে ৩০টি যানবাহনে মামলা, ৯১টি আটক এবং ৭৬,৭০০/- টাকা জরিমানা জেলা বিএনপি নেতা এমরান চৌধুরীর বড় ভাইয়ের মৃত্যুতে খন্দকার মুক্তাদিরের শোক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতি মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে: এড. নাসির খান সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মৃত্যুতে এনডিপির শোক কঠোর লকডাউনের নবম দিনে ৬০টি যানবাহনে মামলা ১২৯টি আটক এবং ৭১,১০০/- টাকা জরিমানা কক্সবাজারে মাতাল ছেলের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল বাবার টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে মই থেকে পড়ে রঙমিস্ত্রির মৃত্যু।

স্থানীয় সরকার শক্তিশালী করতে হবে

  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১ জুলাই, ২০১৮

স্থানীয় সরকারের ঔপনিবেশিক কাঠামো বাংলাদেশ উত্তরাধিকার সূত্রে পেয়েছে। কারণ আমাদের দেশটি ব্রিটিশ শাসনের অধীনে ছিল প্রায় ২০০ বছরের জন্য এবং প্রায় ২৪ বছর ধরেছিল পাকিস্তানের অধীনে। ব্রিটিশ ও পাকিস্তানি যুগে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের কাঠামোতে বিভিন্ন পরিবর্তন সাধিত হয়। স্বাধীনতার পরেও বিভিন্ন শাসনব্যবস্থায় স্থানীয় সরকার সংস্থার কাঠামোতে বেশ কিছু পরিবর্তন সাধিত হয়েছে।
বর্তমানে বাংলাদেশে গ্রামীণ বা আঞ্চলিক স্থানীয় সরকারের তিনটি স্তর রয়েছে: ১. জেলা পরিষদ (ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল), ২. উপজেলা পরিষদ (উপজেলা কাউন্সিল) ও ৩. ইউনিয়ন পরিষদ (৯টি গ্রামের সমন্বয়ে গঠিত) (ইউনিয়ন কাউন্সিল)।

শহর ও নগর দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে উপনগর এলাকায় ইউনিয়ন পরিষদ প্রায়ই পৌর করপোরেশন (পৌরসভা) এবং সিটি করপোরেশনের দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়। প্রশাসনিক কাঠামো আসলে বিভাগ (৮), জেলা (৬৪), উপজেলা ও থানা (৪৮৯) এবং ইউনিয়ন পরিষদ (৪,৫৫৪)।
বাংলাদেশের স্থানীয় সরকারের জন্য একটি নতুন মডেল চিন্তা করা যায়। ব্রিটিশ সরকারের বর্তমান স্থানীয় সরকারকাঠামো থেকে ধার করা হয়েছে ধারণাটি, যা বিশ্বের সেরা স্থানীয় সরকার কাঠামোগুলোর একটি। ব্রিটিশ সরকারের স্থানীয় সরকার যুক্তরাষ্ট্রসহ যেসব দেশ সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ ছিল, তাদের বেশির ভাগ দেশের জন্য মডেল হয়েছে। ১৯ শতকের বেশির ভাগ সংস্কার এবং ১৯৭০-এর দশকে ব্যাপকভাবে পুনর্বিন্যস্ত করা হয়। এই পদ্ধতিটিতে কাউন্টি এবং উপকাউন্টির নির্বাচিত কাউন্সিলের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার স্বায়ত্তশাসনের ওপর জোর দেয়। ব্রিটিশ সার্ভিসের একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে জনসাধারণের পরিষেবার জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং প্রশাসনের তত্ত্বাবধানের জন্য একটি শক্তিশালী নির্বাহী কমিটি এবং যেকোনো পরিবর্তনের জন্য একটি ব্যাপক শক্তিশালী কমিটি সিস্টেমের ব্যবহার।
বাংলাদেশে স্থানীয় সরকার গঠিত ৬৪ জেলা পরিষদ/ জেলা, ৪৮৯ বরা কাউন্সিল / উপজেলা, ৪৫৫৪ কাউন্টি কাউন্সিল/ ইউনিয়ন পরিষদ এবং নির্বাচিত কাউন্সিলরদের দ্বারা। বলতে পারি, জেলা কাউন্সিল সিটি কাউন্সিলের তত্ত্বাবধান করতে পারে এবং বরা কাউন্সিল মেট্রোপলিটন কাউন্সিলকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।
বর্তমানে বাংলাদেশে দু’টি স্বতন্ত্র স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান আছে : একটি গ্রামাঞ্চলে এবং অন্যটি শহুরে এলাকার জন্য। গ্রামীণ এলাকাগুলোতে স্থানীয় সরকার তিনটি স্তরে গঠিত একটি পদানুক্রমিকপর্যায়ে প্রতিনিধিত্ব করে : ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ এবং জেলা পরিষদ। শহুরে স্থানীয় সরকার পৌরসভা এবং মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন দ্বারা গঠিত।
বাংলাদেশের স্থানীয় কাউন্সিল স্থানীয় অংশীদারদের সাথে কাজ করতে পারে (এনজিও, স্বেচ্ছাসেবী, দাতব্য সংগঠন, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান এবং সরকারি প্রতিষ্ঠান যেমন পুলিশ, সিভিল সার্জনকে অন্তর্ভুক্ত করা যায়) এবং বাসিন্দাদের স্থানীয় অগ্রাধিকার নির্ধারণ ও সরবরাহের সাথে কাজ করতে পারে। তারা একটি বিস্তৃত সেবা প্রদান করবে, সরাসরি নিজেরাই কিংবা বহিরাগত সেক্টর থেকে পরিষেবা কমিশন নিয়োগ করতে পারে। স্থানীয় সরকার অর্ডিন্যান্স ১৯৯৩ সাল থেকে, তাদের এলাকার অর্থনৈতিক, সামাজিক ও পরিবেশগত কল্যাণের জন্যও তাদের দায়িত্ব থাকবে। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) (সংশোধিত) অ্যাক্ট ২০১১, প্রতিযোগিতার সাধারণ ক্ষমতাসহ কাউন্সিল প্রদান করবে। বেশির ভাগ কাউন্সিলের সেবা বাধ্যতামূলক করা যায়। এর মানে হলো, কাউন্সিল তাদের দায়িত্ব পালন করবে, কারণ আইনি বিচার দ্বারা নির্ধারিত আইন অনুযায়ী এটি করতে হবে। কিছু বাধ্যতামূলক কার্যক্রম কঠোরভাবে কেন্দ্রীয় সরকার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত করা গেলে উন্নত মানের সেবা পাওয়া যাবে। স্থানীয় সরকারের নির্দিষ্ট বাধ্যতামূলক প্রয়োজনীয় কার্যক্রম ভিন্ন স্তরে এবং ভিন্নভাবে সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে সিটি কাউন্সিল নিজস্ব বিবেচনার ওপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নিতে পারে।
কোনো কোনো কাউন্সিলের সেবা ও কার্যক্রম তার নিজস্ব বিবেচনাধীন হতে পারে। এই পরিষেবার একটি কাউন্সিল প্রদান করতে পারে অথবা বিবেচনায় না-ও নিতে পারে। এই সিদ্ধান্ত বড় অর্থনৈতিক পুনর্জন্ম প্রকল্প থেকে রাস্তার আবর্জনা সাফ করা পর্যন্ত বিস্তৃত করা যায়। কাউন্সিলের বিধিবদ্ধ সেবা প্রদানের জন্য একটি সাধারণ ক্ষমতা রয়েছে, যা তাদের অন্য আইন দ্বারা নিষিদ্ধ নয় এবং কাউন্সিল লাভ করে না। সংসদের আইন অনুযায়ী প্রতিটি কাউন্সিল আর্টস ও বিনোদন কার্যক্রম, ক্রীড়া ও বিনোদনমূলক সুযোগ-সুবিধা এবং কিছু কীটপতঙ্গ নিয়ন্ত্রণের জন্য চার্জ করতে পারে। স্থানীয় কাউন্সিল ৭০০টি পরিষেবা প্রদান করতে পারে।
স্থানীয় সরকার কিভাবে সংগঠিত হবে?

স্থানীয় সরকারকাঠামো এলাকা থেকে এলাকায় পরিবর্তিত হতে পারে। বাংলাদেশের বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তিনটি স্তর- জেলা (আগের জেলা), বরা (আগের উপজেলা) এবং কাউন্টি (আগের ইউনিয়ন) থাকবে; তিনটি স্তরের মধ্যে কাউন্সিলের পরিষেবা বিভক্ত হওয়ার সাথে সাথে ঢাকা, অন্যান্য বিভাগীয় এলাকায় একটি একক স্তর কাঠামোর অধীনে কাজ করতে পারে।
কাউন্টি কাউন্সিল সমগ্র ইউনিয়ন ও পৌরসভা এলাকাজুড়ে এবং স্কুলের, সামাজিক পরিষেবা, পাবলিক পরিবহন, মহাসড়ক, বর্জ্য নিষ্পত্তি ও ট্রেডিং স্ট্যান্ডার্ডসহ এই এলাকার প্রায় ৮০ শতাংশ সেবা প্রদান করতে পারে। কাউন্টি কাউন্সিলের কার্যকারিতা নিরীক্ষণের জন্য প্রত্যেক বরা কাউন্সিল একটি কমিটি গঠন করবে। প্রতিটি জেলা কাউন্সিল একটি ছোট এলাকা অন্তর্ভুক্ত করবে এবং কাউন্সিলের হাউজিং, স্থানীয় পরিকল্পনা, পুনর্ব্যবহার এবং সংগ্রহ ও অবসর গ্রহণের সুযোগসহ বিভিন্ন প্রকার স্থানীয় সেবা প্রদান করতে পারে। বর্তমানে বাংলাদেশে দু’টি স্বতন্ত্র স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান আছে : এক. গ্রামাঞ্চলে এবং অন্যটি শহুরে এলাকার জন্য। বাংলাদেশে সর্বমোট পাঁচটি প্রস্তাবিত স্থানীয় সরকার চালু হতে পারে। যেমন কাউন্টি কাউন্সিল (ইউনিয়ন পরিষদ) ৪৫৫৪টি কাউন্টি কাউন্সিল তাদের কার্যক্রম কাউন্টিব্যাপী বিস্তৃত থাকবে এবং শিশুদের পরিষেবা বয়স্ক সামাজিক যতœসহ ৮০ শতাংশ সেবা প্রদান করতে পারে।
বরা কাউন্সিল (উপজেলা) ৪৮৯টি পৌরসভায় একেকটি একক কর্তৃপক্ষ হতে পারে যার মধ্যে পুলিশ, অগ্নিনির্বাপক, কৌশলগত পরিকল্পনা, পরিবহনের বিশেষ দায়িত্ব থাকবে এবং কাউন্টি কাউন্সিলের কার্যকারিতা নিরীক্ষণ করবে।
মেট্রোপলিটন কাউন্সিল (পৌরসভা) : ৩২০টি মেট্রোপলিটন কাউন্সিল কার্যকর ‘একাত্মতাবাদী’ কর্তৃপক্ষ হতে পারে, এটি পৌরসভার অতীত সাংগঠনিক ব্যবস্থার নাম।

সিটি কাউন্সিল (সিটি করপোরেশন) : ১১টি শহর কাউন্সিল কাউন্টি কাউন্সিলের চেয়ে ছোট এলাকা অন্তর্ভুক্ত করবে। তারা সাধারণত এসব পরিষেবার জন্য দায়ী থাকবে; আবর্জনা সংগ্রহ, পুনর্ব্যবহার, কাউন্সিল ট্যাক্স সংগ্রহ, হাউজিং, পরিকল্পনা অ্যাপিকেশন।
জেলা পরিষদ (জেলা পরিষদ) : বর্তমান ৬৪ জেলা কাউন্সিল আরো স্থানীয় সেবা প্রদান করবে (যেমন হাউজিং, স্থানীয় পরিকল্পনা, বর্জ্য এবং অবসর, শিশুদের সেবা বা প্রাপ্তবয়স্ক সামাজিক যতœ) এবং বরা ও কাউন্টি কাউন্সিলের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করতে পারে।
লেখক :মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন এমবিই স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ, যুক্তরাজ্য

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরণের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 notunalonews24.com
Design and developed By Md.Rafique Ali