1. bnp786@gmail.com : editor :
  2. sylwebbd@gmail.com : mit :
  3. nurulalamneti@gmail.com : Nurul Alam : Nurul Alam
  4. mrafiquealien@gmail.com : Rafique Ali : Rafique Ali
  5. sharuarprees@gmail.com : Sharuar : Mdg Sharuar
  6. Mahareza2015@gmail.com : Muhibur reza Tunu : Muhibur reza Tunu
রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১১:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কঠোর লকডাউনের নবম দিনে ৬০টি যানবাহনে মামলা ১২৯টি আটক এবং ৭১,১০০/- টাকা জরিমানা কক্সবাজারে মাতাল ছেলের ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেল বাবার টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে মই থেকে পড়ে রঙমিস্ত্রির মৃত্যু। সিলেটে নতুন করে করোনা শনাক্ত আরো ১৪৩ জনের। সব ধরনের শিল্পকারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সিলেটের গোয়াইনঘাটে প্রবাসীর স্ত্রীর ঘর থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার। ভারী বর্ষণে কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার ৫২টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দী খুলনার পাইকগাছায় ভারী বর্ষণে পানির নিচে বিস্তীর্ণ এলাকা : নদীতে চলে গেছে ১০/১২টি ঘর-বাড়ি বিশ্বনাথ বিএনপি নেতা কচির এর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন ইলিয়াস মুক্তি সংগ্রাম ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ। সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন অসুস্থ সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা

জগন্নাথপুরের কেশবপুরে সরকারি কবরস্থানে আলিশান বাড়ি দেখার কেউ নেই

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৮
মো.শাহজাহান মিয়া ::সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে সরকারি কবরস্থানে যুক্তরাজ্য প্রবাসীর আলিশান বাড়ি নির্মাণ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন-নিবেদন করছেন স্থানীয়রা।

জানাগেছে, জগন্নাথপুর পৌর এলাকার কেশবপুর বাজারের পাশে ভরতপুর মৌজার জেএল নং ৪৬ এর ১১৬ নং দাগে সরকারি কবরস্থান রকম ভূমিতে গত প্রায় ২ মাস আগে কেশবপুর গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী আনহার মিয়া একটি আলিশান বাড়ি নির্মাণ করেন। এ নিয়ে স্থানীয় জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়।
এদিকে-বাড়িটি উচ্ছেদের দাবিতে কেশবপুর গ্রামের আবু মিয়া, আছকির আলী ও আনোয়ার হোসেন নামের ৩ ব্যক্তি স্বাক্ষরিত গত ২ অক্টোবর জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবরে ও ৭ অক্টোবর সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে পৃথক আবেদন করেন। ৯ অক্টোবর মঙ্গলবার সরজমিনে দেখা যায়, পাকা দেয়াল বেষ্টিত টিন সেডের আলিশান বাড়ি রয়েছে।
এ ব্যাপারে অভিযোগকারীদের মধ্যে আবু মিয়া বলেন, কেশবপুর গ্রামের সরকারি কবরস্থান রক্ষায় আমরা সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন-নিবেদন করছি। তাতেও কাজ হচ্ছে না।
জানতে চাইলে যুক্তরাজ্য প্রবাসী আনহার মিয়ার ভাই ব্যবসায়ী রিপন মিয়া বলেন, আমরা দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে এ জায়গায় বসবাস করছি। এখন শুধু পুরাতন ঘর ভেঙে যাওয়ায় নতুন ঘর বানিয়েছি। তবে উক্ত জায়গা কবরস্থান হিসেবে রেকর্ড হওয়ার আগ থেকেই দখলে আছি। সুতরাং নতুন করে একটি মহল আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এছাড়া আমাদের আশে-পাশে সরকারি কবরস্থান রকম ভূমিতে আরো অসংখ্য বাড়িঘর রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে তো কেউ কথা বলে না।
এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম বলেন, খোঁজ-খবর নিয়ে অবৈধ স্থাপনা তালিকা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরণের আরো খবর
© All rights reserved © 2021 notunalonews24.com
Design and developed By Md.Rafique Ali