মঙ্গল. সেপ্টে ২২, ২০২০

সুনামগঞ্জ জেলা,সদর উপজেলা প্রশাসন,জেলা পরিষদ,পৌরসভা,জেলা যুবলীগ, চেম্বাররের উদ্যোগে ত্রান সহায়তা অব্যাহত।

এম রেজা টুনু সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::
মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসে সারাবিশ্বে মহামারীর প্রার্দুভাবে যখন বাংলাদেশে সংক্রমনব্যাধিতে পরিণত হয়েছে,ঠিক সেই সময়টাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির উদ্দেশ্যে এক ভাষনে দেশের প্রতিটি মানুষকে নিরাপদে ঘরে থাকার আহবান জানান। তার আহবানে সাড়া দিয়ে দেশের মানুষ যখন কর্মহীন হয়ে ঘরেবন্দি তখনই সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সরকারীভাবে র্দূযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের অধীনে এবং সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের নির্দেশনায় সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমার নেতৃত্বে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে প্রথম দফা ১৫ মেট্রিন টন চাল ও নগদ এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এ সময় ৯টি ইউনিয়নের অসহায়,দিনমুজুর ও শ্রমিকদের মধ্যে ১৫শত পরিবারের প্রত্যেকে ১০ কেজি চাল,২কেজি আলো ও ১কেজি ডাল বিতরণ করা হয়।
দ্বিতীয় দফা সরকারীভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় অগ্রাধিকারভিত্তিতে এই উপজেলায় আরো সাড়ে ৪০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ এক লক্ষ ৫৮ হাজার ৫১৭টাকা বরাদ্দের মধ্যে এই ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে প্রতিটি ইউনিয়নে ৪৫০জন অসহায় পরিবারের মধ্যে প্রতিটি পরিবারকে ১০ কেজি চাল ও ২ কেজি আলুসহ ৯টি ইউনিয়নের মোট ৪ হাজার ৫০টি পরিবারের মাঝে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। পাশাপাশি প্রশাসনের উদ্যোগে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মুছি,গাইন ও বেদে সম্প্রদায়ের আরো ২শত টি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল, কেজি আলো তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী দেয়া হয়।

এদিকে সরকারীভাবে র্দূযোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের অধীনে সুনামগঞ্জ পৌরসভায় ২১ টন বরাদ্দ পাওয়া গেলেও সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত নিজ উদ্যোগে ও বন্ধুবান্ধবদের সহায়তায় আরো ৭৯ টন চাল সহ মোট ১০০ টন চাল পৌর শহরের ১০ হাজার নাগরিকদের বাসাবাড়িতে গিয়ে দিনরাত বিরাহমহীন ভাবে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিচ্ছেন। তিনি পৌর শহরের অসহায়,দিনমুজুর,শ্রমিক,কেটে খাওয়া প্রতিটি মানুষের মাঝে ১০কেজি চাল,১কেজি ডাল,২কেজি আলু,৫০০ গ্রাম পিয়াজ ও ৫০০ শত গ্রাম লবণ ঘরে ঘরে পৌছে দিয়েছেন এবং এই পরিস্থিতি অনুকূলে না আসা পর্যন্ত ত্রান সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে ও জানা যায়।

এছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল,যুগ্ম আহবায়ক খন্দকার মঞ্জুর আহমদসহ যুবলীগের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের অসহায় ও হতদরিদ্র দিনমুজুর, শ্রমিক ও বেদে সম্প্রদায়সহ মোট ২ হাজার পরিবারের প্রত্যেকে ১০কেজি চাল,২কেজি আলো ও ১কেজি ডাল বিতরণ করা হয়। এছাড়াও জেলা যুবলীগের উদ্যেগে জেলার বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুর উপজেলায় আরো ৪ শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। পরবর্তীতে সনামগঞ্জের ব্যবসায়ী সংগঠন সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের উদ্যোগে করোনা ভাইরাসে ঘরবন্দি এক হাজার অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের মাঝে প্রতিটি পরিবারকে ১ কেজি চাল,১কেজি আলো ও ১কেজি ডাল বিতরন করা হয়।

অপরদিকে সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহবায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপলের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে তার উদ্যোগে গত ১১ এপ্রিল সুনামগঞ্জ জেলা ইমাম মোয়াজ্জিন পরিষদের অসহায় ও গরীবদের মধ্যে ১শত জনকে ৫কেজি চাল ২ কেজি আলো,এবং ইজিবাইক মালিক সমিতির মাধ্যমে শ্রমিক পরিবারের সভপট আরো ১শত পরিবারকে এবং অন্যান্য আরো ২শত টি শ্রমিক সংগঠনসহ মোট ৪ টি পরিবারের মধ্যে এ খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও জেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য নুরুল ইসলাম বজলু,জেলা যুবলীগের সিনিয়র সদস্য বাবু সবুজ কান্তি দাস।
অপরদিকে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুটের নেতৃত্বে ঘরবন্দি এক হাজার অসহায় ও দিনমুজুর পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাল,১কেজি ডাল ও কেজি আলু এবং ৫ হাজার মাস্ক,৭ হাজার লিফলেট ও প্রতিটি উপজেলায় জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মাইকিং করান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুট ও জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হোসেন ।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা জানান,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের নির্দেশনায় আমি এবং সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপলসহ সবাই মিলে এই করোনা ভাইরাসে ঘরবন্দি কর্মহীন মানুষদের খাদ্য সহায়তা ঘরে ঘরে পৌছে দিয়েছি। এছাড়া সুনামগঞ্জের ব্যবসায়ী মোঃ জিয়াউল হক ও তার ব্যক্তি উদ্যোগে গরীবদের মধ্যে ত্রান সহায়তা করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন এই মহামারী করোনা ভাইরাস যতদিন পর্যন্ত নিয়ন্ত্রনে আসবে না ততোদিন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই অসহায় গরীবদের সহায়তা অব্যাহত রাখবে বলেও তিনি জানান।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত বলেন, আমি একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে এই করোনা ভাইরাস কেন যেকোন র্দূযোগে পৌরবাসীর পাশে আছি এবং পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শের একজন কর্মী হিসেবে জনগনের র্দূদিনে সেবায় যে এবাদত পাওয়া যায় এর চেয়ে বড় নেকি আর কি হতে পারে। আমার পরিবার সব সময় সুনামগঞ্জবাসীর পাশে থেকে সেবা করে গেছেন। আমিও ঐ পরিবারের একজন সন্তান হিসেবে অত্যন্ত স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সাথে পৌরবাসীর সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করার ঘোষনা দেন।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহবায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল বলেন,বর্হিবিশ্বে মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসে যখন মানুষ আক্রান্ত। ঠিক তখনই এই মহামারীর প্রার্দূভাব বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাৎক্ষনিক দেশের প্রতিটি মানুষকে ঘরে থাকার আহবান জানানোর সাথে সাথেই প্রতিটি মানুষ কর্মহীন হয়ে ঘরেবন্দি জীবনযাপন করলে ও সরকারের তরফ থেকে দেশের অসহায় ও কর্মহীন মানুষদের খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রেখেছেন। তিনি বলেন সুনামগঞ্জে জেলা প্রশাসন,জেলা পরিষদ,সদর উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, জেলা যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মী ও চেম্বার অব কমার্সের উদ্যোগে জেলায় গত দু’সপ্তাহ ধরে কর্মহীন মানুষজনের মধ্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে এবং এই মহামারী করোনা ভাইরাস যতদিন আয়ত্বে না আসবে ততদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ত্রান সহায়তা অব্যাহত রাখবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগ ও চেম্বার অব কমার্স এর মাধ্যমে খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল হুদা মুকুট বলেন,এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গোটা বিশ্বে লক্ষাধিক মানুষ মারা গেছেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মেনে সবাই ঘরে আছেন নিরাপদে আছেন। তাই এই করোনা পরিস্থিতি অনকূলে না আসা পর্যন্ত সবাইকে ঘরে থাকার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যেমে এই করোনা ভাইরাসের ভয়কে জয় করেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ও দেশের মানুষ এই সংকট থেকে উত্তরণ ঘটাবে। তিনি যতদিন পর্যন্ত এই মহামারীর প্রার্দুভাব নিয়ন্ত্রনে না আসবে সবাইকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন শেখ হাসিনার সরকার সবাইকে খাদ্য সহায়তা সব সময় দিয়ে আসছেন আগামীতে ও তা অব্যাহত থাকবে বলে আমাবাদ ব্যক্ত করেন । তিনি সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে গরীরদের মধ্যে ত্রান সহায়তা অব্যাহত রাখার কথা ও তিনি জানান। ##

Copyright © notunalonews24.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.